যে কারণে মধুর সম্পর্ক হয়ে উঠে বিরক্তিকর

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০:১৫

মধুর সম্পর্ক কী সবসময় মধুর থাকে? বিয়ের প্রথম দিকে সম্পর্ক যেখানে মধুর ও সুন্দর থাকে সেখানে তা কেন তিক্ত ও বিরক্তিকর হয়ে উঠে এ ব্যাপারে হয়তো একেক জনের একেক ভক্তব্য থাকতে পারে। এ জন্য আবার বিভিন্ন ফ্যাক্টরও কাজ করে যা মধুর সম্পর্কে ফাটল ধরায়। শুধু বিবাহিত জীবন নয়, সব ধরনের সম্পর্কের ক্ষেত্রেই এমনটি হতে পারে। 

গোপন কথা ফাঁস : জীবনে চলার পথে আপনাকে অনেকেই বিশ্বাস করে নিজের ব্যক্তিগত বিষয়, বন্ধুবান্ধব, পরিবারের সদস্য সম্পর্কে নানা গোপনীয় কথা বলতে পারেন। আপনাকে বিশ্বাস করেই তা বলে থাকেন। কিন্তু দেখা গেল সেসব কথা আপনি সবার মাঝে; এমনকি ভরা মজলিসে বলে দিচ্ছেন। এক্ষেত্রে ওই ব্যক্তি সবার সামনে হাসির পাত্রে পরিণত হতে পারেন। ফলে দেখবেন ওই ব্যক্তি আপনাকে আর কোনো দিন কোনো কথা বলবে না । কারণ আপনার প্রতি তার বিশ্বাস উবে গেছে।

হঠাৎ কোনো দৃশ্যের অবতারণা :  জীবনে চলার পথে আপনার সব কিছুই কাছের মানুষদের ভালো নাও লাগতে পারে। তাই বলে যেখানে সেখানে তা নিয়ে ‘সিন ক্রেট’ করা যাবে না। বরং কোনো জিনিসটি আপনার প্রিয় মানুষটির ভালো লাগে না, কেন লাগে না তা যাচাই করে সমাধানে আসতে হবে। 

আসক্তির কথা লুকিয়ে রাখা : একজন ব্যক্তি নানা ধরনের নেশায় যেমন ধূমপান, অ্যালকোহল, মদ, খাদ্য, ফোনে আসক্ত থাকতে পারেন। তা বলে এসব কিন্তু কাছের মানুষদের নিকট গোপন করা যাবে না। আপনি হয়তো তা গোপন রাখেন অথচ তারা তা টের পেলে নিমিষেই আপনার সঙ্গে সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন হয়ে যেতে পারে। 

মানসিক প্রতারণা : কেউ হয়তো মানসিকভাবে আপনার উপর খুবই নির্ভরশীল। আর সে সুযোগে আপনি তাকে যখন তখন যে কোনো কাজে ব্যবহার করছেন। আপনার প্রতি বিশ্বাস রেখে সেও আপনার সব কাজই করে দিচ্ছে। কিন্তু যখন সে জানতে পারবে আপনি তার সঙ্গে প্রতারণা করছেন তখন সেই সম্পর্ক কখনোই থাকবে না। অনেকে একে যৌন প্রতারণার চেয়েও ভয়াবহ বলছেন।

আর্থিক প্রতারণা : কারো সঙ্গে আপনার বহুদিনের সম্পর্ক। ফলে আপনার প্রতি তার প্রচণ্ড বিশ্বাস জন্মেছে। এ সুযোগে আপনি তার কাছ থেকে কাঁড়ি কাড়ি টাকা ধার করছেন। আপনি না দিলেই তাতে সে মনে কিছুই করছে না। কিন্তু এটি যে আপনার প্রতারণা তা যদি সে টের পায় তা হলে চির জীবনের মতো সেই সম্পর্ক শেষ হয়ে যেতে পারে। তাই যে কোনো সম্পর্ক রক্ষা করার জন্য আর্থিক লেনদেনের ব্যাপারে সচেতন থাকতে হয়।

স্বার্থপরতা : যে কোনো কাজে শুধু নিজের স্বার্থটাই দেখবেন না। আপরের স্বার্থকে মূল্যায়ন করতে শিখুন। অপরের স্বার্থ সুরক্ষিত হলেই আপনার উপর নির্ভরশীলতা তৈরি হয়। এ জন্য কার সঙ্গে সর্ম্পক টিকে থাকে। কিন্তু যখন কেউ জানবে আপনি চরম স্বার্থপর তখন কিন্তু কারও সঙ্গে আপনার সম্পর্ক টিকে থাকবে না।

বিপদে ফেলে পালিয়ে যাওয়া : কারো সঙ্গে আপনার দীর্ঘদিনের সম্পর্ক। হঠাৎ ওই ব্যক্তি বিপদে পড়তে পারে এবং সাহায্যের জন্য আপনার শরণাপন্ন হতে পারেন। কিন্তু দেখা গেল, তার বিপদে আপনি পিছনে হটে যাচ্ছেন। সেই বিপদ থেকে সে উদ্ধার পাক আর না পাক কখনই সে আপনার সঙ্গে সম্পর্ক রাখবে না। তাই যত সম্ভব সঙ্গীকে বিপদে সাহায্য করুন।

এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ