ট্রেনের সিটে থাকা পোস্টার কেটে ক্রপ টপ! ভাইরাল তরুণীর কীর্তি

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১২ জানুয়ারি ২০২১, ১০:২৯ | আপডেট : ১২ জানুয়ারি ২০২১, ১০:৩২

করোনা কালে নিউ নর্মাল জীবনের সঙ্গে ধীরে ধীরে অভ্যস্ত হচ্ছি আমরা। সোশ্যাল ডিসট্যান্সের মতো শব্দের সঙ্গে পরিচয় হয়েছে। শুধু পরিচয়ই নয়। হাতেকলমে সেই নিয়ম মানছিও না। সেই সোশ্যাল ডিসট্যান্স নিয়ে ঘটল যত কাণ্ড। ব্রিটেনের এক ফ্যাশন ডিজাইনিংয়ের ছাত্রীর কীর্তিতে রীতিমতো সরগরম নেটদুনিয়া।

মহারি থারস্টন টাইলার সম্প্রতি একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন। যা দেখেন চমকে গিয়েছেন প্রায় সকলেই। ঠিক কী ধরনের ছবি পোস্ট করেছেন ওই তরুণী। সম্প্রতি একটি স্টেশনে গিয়েছিলেন তিনি। করোনার কারণে সেখানে লাগানো সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংয়ের পোস্টারগুলি খুলে নেন। সেগুলি মোটেও ফেলে দেননি মহারি। পরিবর্তে বানিয়ে ফেলেন ক্রপ টপ। তা পরেও ফেলেন। এখানেই শেষ নয়। অনলাইন সংস্থা ডেপোপে সেই ছবিটি শেয়ার করেন। দেন বিক্রির বিজ্ঞাপন কেউ চাইলে এই ক্রপ টপ কিনতে পারেন বলে উল্লেখ করেন। তিনি লেখেন, “খুব সীমিত সংখ্যায় রেখে। উপযুক্ত মাপের টপ বেছে নিন। প্রয়োজনে আমাকে মেসেজও করতে পারেন।” ১৫ পাউন্ড করে দাম ধার্য করা হয় টপটির।

 

বিষয়টি নজরে পড়ে ডেপোপ কর্তৃপক্ষের। এই ধরনের জিনিসপত্র বিক্রি আদতে নিয়ম লঙ্ঘন বলে জানিয়ে দেওয়া হয় ওই তরুণীকে। এমনকী ওই ক্রপ টপটি বিক্রিও বন্ধ করে দেওয়া হয়। বর্তমানে ডেপোপের টুইটার কিংবা ইনস্টাগ্রামে আর ওই ক্রপ টপের ছবি দেখা যাচ্ছে না। ওই তরুণী ক্রপ টপ সম্পর্কে নিজের মতামত প্রকাশ করেছেন। তিনি জানান, স্টেশন থেকে সোশ্যাল ডিসট্যান্সের এই পোস্টারগুলি চুরি করেননি। বাইরে পড়ে ছিল সেগুলিই নিয়েছিলেন। তাঁর আর্থিক অবস্থা ভাল না হওয়ার ফলে ওই ধরনের ক্রপ টপ বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। তবে নিয়মবিরুদ্ধ কাজ করছে, তা বুঝতে পারেননি তিনি। যে ক্রপ টপগুলি বিক্রি হয়েছে সেগুলির টাকা ফেরত দিয়ে দেবেন বলেই আশ্বাস তরুণীর।

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ