ফিফা আন্তর্জাতিক প্রীতি ফুটবল ম্যাচে ভুটানকে ৪-১ গোলে হারিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় দল

নুসরাত হত্যায় আ.লীগ নেতা রুহুলের সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে তদন্ত চলছে

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৮ এপ্রিল ২০১৯, ১৬:৪৫

নুসরাত হত্যাকাণ্ডে সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি রুহুল আমিনের সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে তদন্ত চলছে। তার বিরুদ্ধে হত্যায় জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া গেলে অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন পিবিআই মহাপরিচালক বনজ কুমার মজুমদার। দ্রুত এবং যৌক্তিক সময়ের মধ্যে মামলার চার্জশিট দেয়ার চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে, নুসরাত হত্যা মামলার আসামি সহপাঠী শামীমকে ৫ দিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। হত্যায় জড়িতদের শাস্তি দাবিতে বিভিন্ন স্থানে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ অব্যাহত আছে।

ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসা শিক্ষার্থী নুসরাত রাফি হত্যার পর থেকে বার বারই সামনে এসেছে সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং মাদ্রাসার পরিচালনা পর্ষদের সহ সভাপতি রুহুল আমিনের নাম। নুসরাতের শরীরে আগুন দেয়া ঘটনাকে ‌আত্মহত্যা বলে প্রচার করতে স্থানীয় সাংবাদিকদের প্রলোভন দেখানো, নুসরাতের পক্ষে মানবন্ধন করতে চাইলে তাতে বাধা দেয়াসহ নানা অভিযোগ তার বিরুদ্ধে।

পিবিআই সূত্র বলছে, এখন পর্যন্ত ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয়া একাধিক আসামির বক্তব্যে রুহুল আমিনের সংশ্লিষ্টতার বিষয়টি উঠে এসেছে। পিবিআই প্রধান বলছেন, সব তথ্য বিশ্লেষণ করে তার সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেলে অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে।

পিবিআই ডিআইজি বনজ মজুমদার বলেন, এখন পর্যন্ত তার নাম যতটুকু পেয়েছি, সেটুকু আমরা অ্যানালাইসিস করছি। যদি তার সম্পর্কে কিছু থাকে তবে তারও ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই মামলার যে ছয় সন্দেহভাজনের বিদেশ গমনে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে চিঠি দেয়া হয়েছিল তার মধ্যে তিনজন গ্রেফতার হয়েছে। এছাড়া ইফতেখার রানা, মহিউদ্দিন শাকিলসহ আরো একজনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, আমরা যে পয়েন্টে টার্গেট করেছিলাম, সেটা পূরণ হয়েছে। প্রথমে তারা স্বীকার করতে চায় নি। কিন্তু পরে সারা দেশ থেকে জিজ্ঞাসাবাদের টিম এনে সব বের করা হয়।

এদিকে বুধবার পুরান ঢাকা থেকে গ্রেফতার শামীমকে আদালতে হাজির করে পাঁচদিনের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে শরীফ নামে আরো এক আসামি। এই প্রেক্ষাপটে দ্রুত চার্জশিট দেয়ার চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।

এসময় তিনি আরো জানান, চার্জশিট দিলেই যে বিচারকার্য শুরু হবে সেরকম কিছু না। আদালত যদি ডক গ্রহণ করে তাহলেই বিচার শুরু হবে, নতুবা আবার চার্জশিটটিকে তদন্তের জন্য ফিরিয়ে দেয়া হবে। সেটা যেন না হয়, তার জন্য আমরা দ্রুত কাজ করবো।

এখন পর্যন্ত মামলার তদন্তে সন্তোষজনক অগ্রগতি রয়েছে দাবি করে পিবিআই প্রধান বলছেন, সম্পূর্ণ নিরপেক্ষভাবে চলছে তদন্ত।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ