ইরানের সামরিক মহড়ার পর মার্কিন ঘাঁটিতে সতর্কতা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০১ আগস্ট ২০২০, ১৮:২৭

ইরানের সামরিক মহড়া চলার সময় পারস্য উপসাগরীয় দেশগুলোতে মোতায়েন মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে সতর্কাবস্থা জারি করা হয়েছিল। যা এখনো বলবত রয়েছে। ওই সময় সেনাদেরকে বাংকারে থাকারও নির্দেশনা দেওয়া হয়।

মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) থেকে শুরু হওয়া ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর নবী মোহাম্মদ (সা.)-১৪ নামে অনুষ্ঠিত এই মহড়াটিতে ব্যালিস্টিক ও ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছে।

এ সময় হরমুজ প্রণালীতে যুক্তরাষ্ট্রের বিমানবাহী রণতরীর আদলে সাজানো একটি ‘কৃত্রিম’ যুদ্ধজাহাজ মিসাইল ছুড়ে ধ্বংস করেছে ইরান।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, এই মহড়ার সময় এতো বেশি গোলাগুলি হয় যে, ওই অঞ্চলের দুইটি সামরিক ঘাঁটিতে সাময়িক সতর্কাবস্থা জারি করে যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিন টেলিভিশন চ্যানেল সিএনএনসহ আরও বেশকিছু মিডিয়ার বরাতে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি নিউজের সাংবাদিক নাফিসে কোহনাভার্দ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম টুইটারে একটি পোস্ট শেয়ার করেন। মূলত সেখানেই তিনি বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

নাফিসে কোহনাভার্দ বলেছেন, ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়ার কারণে সংযুক্ত আরব আমিরাত, কুয়েত এবং কাতারে মোতায়েন সেনাদেরকে নির্দিষ্ট কিছু সময়ের জন্য উচ্চ সতর্কতায় রাখা হয়েছিল। আমার সূত্রগুলো আমাকে সঠিক বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

যদিও অন্য কয়েকটি সূত্রও বলেছে, সংযুক্ত আরব আমিরাতের আল-জাফরা এবং কাতারের আল-উদেইদ বিমানঘাঁটিতে মোতায়েন মার্কিন সেনাদেরকেই কেবল বাংকারে লুকিয়ে থাকতে বলা হয়েছিল।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ