ক্যান্সার আক্রান্তদের জন্য লম্বা চুল কামালেন নারী পুলিশ কর্মী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১২ নভেম্বর ২০১৯, ১২:৫০

রাপুনজেলের মতোই এক ঢাল লম্বা চুল ছিল কেরলের নারী পুলিশ অফিসার অপর্ণা লাভাকুমারের। সচেতনতার প্রচারে একটি স্কুলে গিয়ে ক্যান্সার আক্রান্ত এক শিশুকে দেখেছিলেন তিনি। কেমোথেরাপি চলাকালীন চুল উঠে যাওয়ায় নাজেহাল হয়ে পড়েছিল সে। বাড়ি ফিরে এসেও সেই অসহায় মুখটি ভুলতে পারেননি অপর্ণা। সেই শিশুর প্রতি সমবেদনা থেকেই ক্যান্সার আক্রান্তদের পাশে দাঁড়াতে অভিনব উদ্যোগ নিয়েছেন বছর চুয়াল্লিশের এই অফিসার। সাধের লম্বা চুল পুরো কামিয়ে ন্যাড়া হয়ে গিয়েছেন তিনি। সেই চুল দান করেছেন একটি ক্যান্সার গবেষণা কেন্দ্রে, গরিব ক্যান্সার আক্রান্তদের জন্য পরচুল তৈরির জন্য। যা বিনামূল্যে ওই রোগীদের দেওয়া হবে। অপর্ণার এই মানবিক উদ্যোগ এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। ভিডিওটি বহু নারীকে কোনো না কোনো মানবিক উদ্যোগ নিতে অনুপ্রাণিত করবে বলেই রবিবার আশাপ্রকাশ করেছেন অপর্ণা।

কেমোথেরাপির জন্য চুল উঠে যাওয়া ক্যান্সার রোগীদের একটা প্রধান সমস্যা। তা থেকে বাঁচতে পরচুলার আশ্রয় নিতে হয় তাদের। তাদের মধ্যে অনেকেই আবার কৃত্রিম পরচুলায় অ্যালার্জি রয়েছে। সেই কারণেই অনেক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাই মানুষের কেটে ফেলা চুল পরচুল তৈরির কাজে ব্যবহার করে। কয়েকদিন আগে পশ্চিমবঙ্গের এক নারী রেডিও জকিও একই কাজ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোড়ন ফেলে দিয়েছিলেন। একই কাজ করেছেন অপর্ণাও। এর জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতিও নিয়েছেন। মাসদুয়েক আগে ত্রিচূর জেলার এক বন্ধুর বিউটি পার্লারে গিয়ে নিজের মাথা কামিয়ে ফেলেন এই পুলিস অফিসার। সে সময় কোনো এক ব্যক্তি তার ভিডিও তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করেন।

স্বামীকে হারিয়েছেন আগেই। দুই সন্তান রয়েছে অপর্ণার। তিনি মনে করেন একটা ভালো কাজ করে সমাজের মধ্যে সেই বার্তা ছড়িয়ে দেওয়া দরকার।
তথ্যসূত্র : ভারতীয় সংবাদমাধ্যম বর্তমান
 
এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ