চীন-যুক্তরাষ্ট্রের পাল্টাপাল্টি শুল্কারোপ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৪ আগস্ট ২০১৯, ১২:০৯

চীন ও যুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্যযুদ্ধের উত্তাপ ক্রমে বেড়েই চলেছে। দুই দেশই পরস্পরের পণ্যে পাল্টাপাল্টি শুল্কারোপের ঘোষণা দিয়েছে। মার্কিন পণ্যের ওপর চীন শুল্ক আরোপের ঘোষণা দেওয়ার পর এবার চীনা পণ্য আমদানিতে নতুন করে আবারও শুল্কারোপ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। 

স্থানীয় সময় গতকাল শুক্রবার এক সিরিজ টুইটে ট্রাম্প ঘোষণা করেন, চীন থেকে পণ্য আমদানিতে শুল্কের হার আরও ৫ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে।

এর কয়েক ঘণ্টা আগে যুক্তরাষ্ট্রের সাড়ে ৭ হাজার কোটি ডলার মূল্যের পণ্যের ওপর শুল্কারোপের ঘোষণা দিয়েছিল চীন।

চীনের এ পদক্ষেপকে ‘রাজনৈতিক চাল’ বলে মন্তব্য করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে চীন সুবিধা আদায় করতে চাইছে বলেও অভিযোগ করেন ট্রাম্প।

ট্রাম্প টুইটে লেখেন, ‘দুর্ভাগ্যজনকভাবে আগের (মার্কিন) সরকারগুলো চীনকে বাণিজ্যক্ষেত্রে এত অতিরিক্ত সুবিধা দিয়ে রেখেছে যে এখন তা মার্কিন করদাতা জনগণের জন্য বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রেসিডেন্ট হিসেবে আমি তা আর মেনে নিতে পারছি না।’

এ ছাড়া ট্রাম্প চীনে পণ্য উৎপাদন করা মার্কিন প্রতিষ্ঠানগুলোকে চীনের ‘বিকল্প খুঁজতে ‘নির্দেশ’ দেন এবং যুক্তরাষ্ট্রেই নিজেদের পণ্য উৎপাদনের পরামর্শ দেন।

এর আগে চীন ৫ হাজারের বেশি মার্কিন পণ্যের ওপর ৫ থেকে ১০ শতাংশ শুল্ক বসানোর পরিকল্পনা ঘোষণা করে। এসব পণ্যের মধ্যে রয়েছে কৃষিপণ্য, উড়োজাহাজ ও অপরিশোধিত তেল ইত্যাদি। 

এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্র থেকে গাড়ি আমদানিতে স্থগিত করে রাখা ২৫ শতাংশ শুল্ক পুনরায় আরোপ করারও ঘোষণা দেয় চীন। চীনের এমন পদক্ষেপে টুইটারে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট। 

দুই ধাপে ১ সেপ্টেম্বর ও ১৫ ডিসেম্বর থেকে মার্কিন পণ্যের ওপর নতুন শুল্কারোপের ঘোষণা দেয় চীন।

জবাবে ডোনাল্ড ট্রাম্প স্থানীয় সময় শুক্রবার রাতে সিরিজ টুইটে জানান, ২৫ হাজার কোটি ডলার মূল্যের চীনা পণ্যের ওপর আগামী ১ অক্টোবর থেকে ২৫ থেকে ৩০ শতাংশ হারে নতুন করে শুল্কারোপ করা হবে। 

ট্রাম্প আরও জানান, ৩০ হাজার কোটি ডলার মূল্যের চীনা পণ্যের ওপর বর্তমান ১০ শতাংশ শুল্কের পরিবর্তে ১৫ শতাংশ হারে শুল্কারোপ করা হবে।

এর আগে প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী মার্কিন কৃষিপণ্য কিনছে না চীন- এমন অভিযোগে ১ আগস্ট চীনা পণ্যের ওপর ১০ শতাংশ বাড়তি শুল্কারোপের ঘোষণা দিয়েছিলেন ট্রাম্প।

এদিকে চীন বনাম যুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্যযুদ্ধের সর্বশেষ পরিস্থিতির প্রভাব পড়েছে বৈশ্বিক বাজারে।

এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ