জরুরি ভিত্তিতে ক্ষেপণাস্ত্র কেনার আহ্বান জানাল ভারতীয় বিমান বাহিনী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২১ মার্চ ২০১৯, ০০:৪৫

ভারতীয় বিমান বাহিনী জরুরি ভিত্তিতে ক্ষেপণাস্ত্র কেনার জন্য দেশটির সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। ভারতীয় একটি দৈনিক এবং রাশিয়া একটি সংবাদ মাধ্যম এ খবর দিয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, কাশ্মির সীমান্তের কাছাকাছি পাকিস্তানের এফ-১৬ যুদ্ধবিমানের গোটা বহর মোতায়েনকে কেন্দ্র করে ভারতীয় বিমান বাহিনীর টহল বেড়ে গেছে। আকাশযুদ্ধে ব্যবহার যোগ্য ক্ষেপণাস্ত্রসহ অস্ত্রে পুরোপুরি সজ্জিত হয়ে এ সব টহল দেয়া হয়।

ভারতের সরকারের শীর্ষ সূত্র থেকে বলা হয়েছে, এ সব ক্ষেপণাস্ত্রের আয়ু সীমিত। এগুলো যখন বাক্সবন্দি হয়ে থাকে তখন বছর গুণে আয়ুর হিসাব করা হয়। কিন্তু যুদ্ধবিমানে টহল দেয়ার জন্য এ সব ক্ষেপণাস্ত্র বহন করা হলে তাতে ক্ষেপণাস্ত্রের খোল বা শেলের আয়ু কমে যায়। কতবার টহল দেয়া হয়েছে তার ওপর নির্ভর করে ক্ষেপণাস্ত্রের আয়ু। এ অবস্থায়, ভারতীয় বিমান বাহিনীকে বিশেষ করে আকাশ থেকে আকাশে নিক্ষেপযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্র দ্রুত যোগান দিতে হবে। গত মাসের শেষের দিকে পাকিস্তানের সঙ্গে আকাশ যুদ্ধকে কেন্দ্র করে ভারতীয় বিমান বাহিনী উচ্চ সতর্কাবস্থায় বজায় রেখেছে। এ ছাড়া, সীমান্তের দুই পাশেই বিমান বাহিনী তৎপরতা অনেক বেড়ে গেছে। বিশেষ করে রাতের টহল তৎপরতা বেড়েছে।

দ্রুততম সময়ে জবাব দেয়ার প্রয়োজনকে সামনে রেখে ভারতের অগ্রবর্তী অবস্থানে প্রস্তুত রাখা হয়েছে আইএএফ যুদ্ধবিমান বহর। এ সব যুদ্ধবিমানের মধ্যে রয়েছে সুখোই-৩০এমকেআই এবং মিরেজ-২০০০। ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু এবং কাশ্মিরেও যুদ্ধবিমানের শক্তি বাড়ানো হয়েছে।

এ দিকে, বালাকোটে হামলার পরদিন ভারতের বিরুদ্ধে আকাশযুদ্ধে এফ-১৬ ব্যবহারের বিষয়ে বিস্তারিত ভাবে আমেরিকার সঙ্গে শলা-পরামর্শ করেছে ভারত। আর তাতেও ভারত সীমান্তে পাকিস্তানের এফ-১৬ মোতায়েন ঠেকানো যায় নি এবং ফলে অস্বস্তি বোধ করছে নয়াদিল্লি।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ