শত্রুর হুমকি কিংবা হাসিমাখা মুখ দেখে কেউ ধোঁকায় পড়বেন না: সর্বোচ্চ নেতা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:৩৫

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী তাবরিজ গণ-অভ্যুত্থানের বার্ষিকীতে কর্মকর্তাদের এক সমাবেশে বলেছেন, "শত্রুকে সঠিকভাবে চিনে রাখা উচিত এবং সতর্ক থাকা উচিত তাদের হুমকি কিংবা হাসিমাখা মুখ দেখে যেন কেউ ধোঁকায় না পড়ে।"

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা পাশ্চাত্যের কার্যকলাপ ও আচরণকে প্রতারণাপূর্ণ হিসেবে অভিহিত করে বলেছেন, "আমেরিকার শত্রুতার বিষয়টি সবার কাছেই স্পষ্ট হয়ে গেছে কিন্তু আমাদেরকে এখন ইউরোপের আচরণের ব্যাপারে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে হবে। কারণ তারাও কূটচালের আশ্রয় নিয়েছে।"

সর্বোচ্চ নেতা তার বক্তব্যে পরমাণু সমঝোতা টিকিয়ে রাখতে ইউরোপের গড়িমসি ও এ ব্যাপারে ইউরোপের প্রতিশ্রুতির প্রতি বিশ্বাস না রাখা এবং আমেরিকাকে বিশ্বাস না করার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন। এর আগে তিনি ছাত্র ও শিক্ষকদের এক সমাবেশে আমেরিকা ও পরমাণু সমঝোতার ব্যাপারে এক বক্তৃতায় ইরানি জাতির সম্মান ও গৌরবের কথা উল্লেখ করে বলেছেন, বহুবার বলেছি, "আমেরিকাকে বিশ্বাস করবেন না এবং এখন যে অবস্থা তা ওই বিশ্বাসেরই ফল। ইউরোপের তিনটি প্রভাবশালী  দেশের সঙ্গে আলোচনার ব্যাপারেও আমি বলতে চাই তাদেরকেও বিশ্বাস করার কোনো কারণ নেই। যে চুক্তিই  করা হোক না কেন তা অবশ্যই কার্যকর করার নিশ্চয়তা থাকতে হবে। এর অন্যথায় এভাবে বেশি দিন চলতে পারে না।" সর্বোচ্চ নেতা আরো বলেন, "ওরা হাসিমুখে প্রতিপক্ষের বুকে ছুরি বসিয়ে দেয় এবং বাহ্যিক প্রশংসা করে নিজেদের অসৎ উদ্দেশ্য হাসিল করে নেয়।"

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, ইরান পারস্পরিক সম্মানের ভিত্তিতে ইউরোপের সঙ্গে গঠনমূলক সংলাপের জন্য প্রস্তুত। কিন্তু ইরানের ধৈর্যের একটা সীমা রয়েছে এবং ইউরোপের উচিত হবে না তাদের ইচ্ছা পূরণের জন্য সময় ক্ষেপন করা। কারণ পরমাণু সমঝোতা টিকিয়ে রাখার জন্য ইউরোপ যেভাবে সময় নিচ্ছে তাতে তাদের উদ্দেশ্য নিয়ে সন্দেহ তৈরি হয়েছে। তবে ইউরোপ যতই চালাকি করার চেষ্টা করুক প্রতিশ্রুতি রক্ষা না করার ব্যাপারে ইউরোপের কোনো অজুহাত কিংবা ব্যাখ্যা  ইসলামি ইরানের কাছে গ্রহণযোগ্য হবে না।

পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গিয়ে ফের নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর আমেরিকা নানা কৌশলে পরমাণু সমঝোতায় ইরানকে ধরে রাখার চেষ্টা করছে। বিশ্লেষকরা বলছেন, আমেরিকা ইরানের বিরুদ্ধে নতুন করে যে খেলায় অবতীর্ণ হয়েছে তাতে তারা ইউরোপকে ব্যবহার করছে। ইউরোপকে দিয়ে আমেরিকা ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচিকে নিয়ন্ত্রণ করাসহ নানান পরিকল্পনা বাস্তবায়নের চেষ্টা করছে। ইউরোপ যদিও জানিয়েছে তারা ইরান ইস্যুতে মার্কিন নীতির সঙ্গে একমত নয় কিন্তু তারপরও তারা পরমাণু সমঝোতা বাস্তবায়নে গড়িমসি করছে। ইউরোপ পরমাণু সমঝোতা টিকিয়ে রাখার কথা বলছে কিন্তু তাদের এটা মনে রাখা উচিত এই চুক্তির আওতায় ইরানের স্বার্থ টিকিয়ে রাখাও তাদের দায়িত্ব।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ