ফুটবল সুন্দর, জীবন আরও বেশি সুন্দর

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৯ জুন ২০১৮, ১৪:০৬

মৌসুমী সুলতানা, ২৯ জুন, এবিনিউজ : আর্জেন্টিনা হারছে বলে আত্মহত্যা! বোকামি, হতাশা আর দুঃখজনক খবর। যদিও তা বাংলাদেশের নয়। তবুও লিখছি, যাতে বাংলাদেশের কোনো যুবক, তরুণ এই বোকামি না করে।

‘এই বিশ্বকাপে আর কিছু দেখার নেই। আমি চলে যাচ্ছি, কেউ আমার মৃত্যুর জন্যে দায়ী নয়। মেসি, আমি তোমার জন্যে আমার জীবন ত্যাগ করছি। আমি অপেক্ষা করছিলাম, তোমার হাতে বিশ্বকাপ দেখবো বলে।’

এটা ভারতের কেরালার ৩০ বছর বয়সী মেসি ভক্ত দিনু এলেক্সের সুইসাইড নোট। ক্রোয়েশিয়ার সাথে ০-৩ গোলে হারার পর দিনু আত্মহত্যা করেন। ম্যাচের পর তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলো না। দিনু তার বাড়ির পাশের নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়ে। পরবর্তীতে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে।

সারা বিশ্ব এখন ফুটবল উন্মাদনায় ভাসছে। সেই ঢেউ লেগেছে বাংলাদেশেও। বিশ্বকাপ চলাকালে ফুটবল ভক্তদের অনেক পাগলামির খবরও আমরা পাচ্ছি। চ্যানেল আইয়ে ন্যাশনাল ডেস্কে কাজ করার সুবাদে সেসব খবর পাই।

এইতো গত ২৩ জুন শনিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে ব্রাজিল আর আর্জেন্টিনা সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়। এটিও দুঃখজনক। এর বাইরে আবার হাস্যকর কিছু ঘটনাও আছে। গত বৃহস্পতিবার নরসিংদী শহরের বৌয়াকুড় এলাকায় একটি বিয়ে বাড়ির গেট সাজানো হয়েছিল আর্জেন্টিনার পতাকায়। কিন্তু পাত্রী ব্রাজিল সমর্থক হওয়ায় বিপত্তি বাধে। সেই গেট দিয়ে বরের বাড়ি ঢুকতে আপত্তি জানায় পাত্রী নিজেই!

বাঙালি বরাবর আবেগী জাতি। আর ভয়টা এখানেই। সেই আবেগে ভেসে কোনো মায়ের বুক যেন খালি না হয়। এমন খেলা পাগল দর্শক আর বিশ্বের দ্বিতীয় কোন দেশে নেই। ফুটবল খেলাতেও মিশে থাকে অনেক ইমোশন। পৃথিবীর আর কোন খেলা দেখে দর্শকের চোখ ভিজে উঠে কিনা আমার জানা নেই। শুধু দর্শক কেন যারা মাঠ কাঁপান তাদেরও আমি মাঠে কাঁদতে দেখেছি। জার্সিতে তাদের চোখ মোছার দৃশ্য হরহামেশা আমরা দেখি। তাদের জয়-পরাজয়ের যে কোন এক্সপ্রেশনই আমাদের আবেগী করে তোলে।
নরসিংদীর শহরের বৌয়াকুড় এলাকার সানজিত হাসান পাপন ফেসবুকে জানান, হবু বউকে বললাম আর্জেন্টিনার পতাকার রঙে গেট তৈরি করেছি, সে জানালো এই গেট দিয়ে বাসায় ঢুকবে না। কারণ সে ব্রাজিল সর্মথক।

নরসিংদীর শহরের বৌয়াকুড় এলাকার সানজিত হাসান পাপন ফেসবুকে জানান, হবু বউকে বললাম আর্জেন্টিনার পতাকার রঙে গেট তৈরি করেছি, সে জানালো এই গেট দিয়ে বাসায় ঢুকবে না। কারণ সে ব্রাজিল সর্মথক।

আমরা ফুটবলকে ভালোবাসি। ভালোবাসি মেসি, রোনালদো, নেইমারদের। কিন্তু তার চাইতেও অনেক বেশি ভালোবাসি আমাদের পরিবারকে। মেসি বা আর্জেন্টিনা কখনই দিনু এলেক্সকে মিস করবে না। কিন্তু তার পরিবার, বাবা-মা সারাজীবন তার জন্যে চোখের পানি ফেলবে।

ফুটবলের সাথে মিশে থাকে অনেক হাসি কান্নার গল্প। আর যদি হয় বিশ্বকাপ- তাহলে তো কথাই নেই। ভক্তদের পাগলামি সীমা ছাড়িয়ে যায়। আবারও বলছি, সেই পাগলামি যেন কাউকে আত্মঘাতী করে না তোলে। ফুটবলের জন্য আমরা আর কোন দিনুর মৃত্যু সংবাদ শুনতে চাই না। খেলার চেয়ে জীবনের মূল্য অনেক বেশি। জীবন সুন্দর। ফুটবলও সুন্দর। খেলা বেঁচে থাকুক জীবনকে ঘিরে। খেলা যেন হয় শুধুই উপভোগের।

সংগৃহিত

লেখক: সিনিয়র নিউজ রুম এডিটর, চ্যানেল আই

এই বিভাগের আরো সংবাদ