মারধর খাওয়ার পরও সেই শ্যাম বম্বের কাছেই ফিরলেন পুনম

  জি নিউজ

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:৩২ | আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:৩৭ | অনলাইন সংস্করণ

শ্যাম বম্বের হাতে মারধর খাওয়ার পরও সেই বরের কাছেই ফিরলেন পুনম পান্ডে! সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে এমনটাই খবর মিলেছে। নিজের ইনস্টাগ্রামে শ্যাম বম্বে ফের পুনমের সঙ্গে বিয়ের একটি হাসখুশি ছবি পোস্ট করেছেন।

হ্যাঁ, আপনি ঠিকই শুনেছেন। 

পুনমের চোখের জল শুকিয়েছে কিনা সন্দেহ। স্বামীকে কাঠগড়ায় তুলে গাল-মন্দ করে, এমনকী জেলে পাঠানোর পরই রাতারাতি সব ভুলে গেলেন সোশ্যাল মিডিয়ার সেনসেশন। সেজেগুজে স্বামীর সঙ্গে দিব্যি ছবি তুলেছেন। ইনস্টাগ্রামে তা পোস্ট করেছেন স্যাম। কিন্তু কয়েকদিনের মধ্যেই এমন কী হল যে ‘শত্রুতা’ ভুলে ফের স্বামীকে বুকে টেনে নিলেন পুনম! এক সংবাদমাধ্যমকে পুনম বলেন, “আমাদের মধ্যে সমস্ত তিক্ততা দূর করারই চেষ্টা করছিলাম। অনেকটাই হয়েছে। আমরা আবার একসঙ্গে। ভালবাসা থাকলে সব সমস্যাই মিটিয়ে ফেলা যায়।” 

 

স্ত্রীর হাত নতুন করে শক্ত করে ধরে স্বামী স্যাম বম্বে জানালেন, “বিষয়টা অতিরিক্ত মাত্রায় পৌঁছে গিয়েছিল। তবে এখন সব ঠিক আছে।”

শ্যাম বম্বে জানান, তারা খুব শীঘ্রই গোয়া থেকে মুম্বাই ফিরবেন। 

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগেই মধুচন্দ্রিমায় গিয়ে স্বামীর বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ তুলেছিলেন পুনম। এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছিলেন, প্রায় দেড় বছর ধরে স্যাম বম্বের সঙ্গে সম্পর্কে রয়েছেন তিনি। শুরু থেকেই অত্যাচার করতেন স্যাম। বিয়ে করলে সমস্ত কিছু ঠিক হয়ে যাবে। এমনটা ভেবেই সেপ্টেম্বরের ১১ তারিখ সাত পাকে বাঁধা পড়েছিলেন। কিন্তু পরিস্থিতি আরও খারাপ হয় গোয়ায় মধুচন্দ্রিমায় যাওয়ার পর। ২৩ সেপ্টেম্বর রাতে অত্যাচার চরমে পৌঁছায়। যদিও পুনমের দাবি করেছিলেন, তিনি পুলিশকে ডাকেননি। হোটেলের ঘর থেকে চিৎকার-চেঁচামেচি শুনে কর্মীরাই গোয়া পুলিশকে খবর দিয়েছিলেন। স্যাম নাকি নৃশংসভাবে তাঁকে মারধর করছিলেন। পুনমের মুখের একপাশ ফুলেও গিয়েছিল! মেডিক্যাল পরীক্ষার পর আবার পুনম জানতে পারেন মারের চোটে তাঁর ব্রেন হেমারেজ হয়ে গেছে। তবে রাতারাতি বদলে গেল ছবিটা। স্যাম-পুনম এখন ‘হ্যাপি কাপল’।

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ