ভারতে সেরা নির্মাতার পুরস্কার জিতেছেন বাংলাদেশের ‘পুতুল জীবন’

ঢাকা, ১৭ জুলাই, এবিনিউজ : ভারতের পশ্চিমবঙ্গের চন্দন নগরে প্রথমবার ভারত ও বাংলাদেশের ইন্ডিপেনডেন্ট ফিল্ম মেকারদের চলচ্চিত্র নিয়ে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল বাউণ্ডুলে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র উৎসব ও প্রতিযোগিতা। রোববার (১৫ জুলাই) বাংলা ও হিন্দী ভাষার প্রায় একশটি চলচ্চিত্রের মধ্যে সেরা দশ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নিয়ে দিনব্যাপী চলে উৎসবের আনুষ্ঠানিকতা। এখানে সেরা দশে স্থান করে নেয় বাংলাদেশের স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র, ‘পুতুল জীবন’। আনন্দের খবর হলো এই প্রতিযোগীতায় দুই ক্যাটাগরিতে পুরস্কার জিতেছে চলচ্চিত্রটি।

এই আসরের সেরা নির্মাতার পুরস্কার জিতেছেন ‘পুতুল জীবন’ চলচ্চিত্রটির পরিচালক হীরক মুশফিক ও সেরা অভিনেত্রী পুরস্কারটি পায় এই চলচ্চিত্রের শিশু শিল্পী রোদেলা। চলচ্চিত্রটির পরিবেশক ছিল বুনো পায়রা। হীরক মুশফিক বলেন,‘আমি বাংলাদেশের হয়ে দেশের বাইরে থেকে পুরস্কার নিচ্ছি এর থেকে আনন্দের কিছু নেই। কৃতজ্ঞতা সৃষ্টিকর্তা, মা-বাবা, আর সকল কাছের মানুষকে। সবার অনুপ্রেরণায় এগিয়ে যেতে চাই।’

বুনো পায়রা প্রোডাকশনের স্বপ্নদ্রষ্টা আবু হেনা রনি বলেন,‘প্রথমবারের মত আমাদের চলচ্চিত্র দেশের বাইরে পুরস্কৃত হয়েছে, আমরা আনন্দিত। কথা দিলাম ভবিষ্যতে আরো ভালো কাজ নিয়ে আসবে বুনোপায়রা।’

এই উৎসবের আয়োজক তন্ময় মজুমদার বলেন, ‘আমরা চাই, চলচ্চিত্রের প্রকাশ আরো বিস্তার লাভ করুক, আর সেটা হোক তরুণদের হাত ধরে। যারা পকেটের টাকা খরচ করে চলচ্চিত্র বানায়, শুধুমাত্র ভালোবাসার নেশায়। সেইসব নির্মাতাদের ভেতরের আগুনকে আরেকটু উসকে দেওয়া আমাদের লক্ষ্য।’

উৎসবের অন্যতম সংগঠক শুভ্র গোপাল গোস্বামী বলেন,‘প্রথমবারের মত এ আয়োজনে আমাদের বন্ধু রাষ্ট্র বাংলাদেশ থেকে ভীষণ সাড়া পেয়েছি। এতে আমরা খুশি, সেই সাথে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র 'পুতুল জীবন'কে অভিনন্দন। এই ধারা অব্যাহত থাকবে প্রত্যাশা করি।’

অনুষ্ঠানে দশটি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার প্রদান করা হয়। ভারতীয় শিল্পীদের অংশগ্রহণে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শেষ হয়।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি