মোবাইল চুরির অভিযোগে সাংবাদিকদের আটকে রাখলেন শমী কায়সার

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ২০:১৬

মোবাইল চুরি হওয়ায় প্রায় অর্ধশত সাংবাদিককে আটকে রেখে পরে ক্ষমা চাইলেন শমী কায়সার। বুধবার (১৪ এপ্রিল) জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী মিলনায়তনে এ অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে।

সেখানে একটি ট্যুরিজম কোম্পানির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, বিশেষ অতিথি ছিলেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ।

ওই অনুষ্ঠানে শমী কায়সারের উপস্থিতিতে কেক কাটার আয়োজন করা হয়। কেক কাটার সময় শমীর দু’টি ফোন হারিয়ে যায়। কেক কাটা শেষ হওয়া মাত্র শমী কায়সার চিৎকার করে জানান, তার দুটি ফোনই হারিয়ে গেছে। 

এসময় পুরো মিলনায়তনে হট্টগোল শুরু হয়। ক্ষুব্ধ শমী কায়সার বলেন, ‘মিলনায়তনে উপস্থিত প্রত্যেকের পকেটে তল্লাশি চালিয়ে হলেও ফোন দুটি খুঁজে বের করা হবে।’ 

এসময় শমী কায়সার প্রায় অর্ধশত সাংবাদিককে ওই কক্ষে আটকে রাখেন। মিলনায়তনে উপস্থিত সবাইকে তল্লাশি চালানোর উদ্যোগ নিলে উপস্থিত অনেকেই তার প্রতিবাদ জানান। পরে মিলনায়তনের সিসিটিভি ফুটেজ থেকে ফোন চুরির ঘটনাটি নিশ্চিত হওয়া গেছে।

সিসিটিভি ও উপস্থিত টিভি ক্যামেরাগুলোর ফুটেজে দেখা যায়, কেক কাটার সময় কেকের পাশেই থাকা শমী কায়সারের ফোন দুটি চুরি করে নেয় সাদা টি-শার্ট পরিহিত এক তরুণ। ‘বিন্দু ৩৬৫’ প্রতিষ্ঠানের স্বেচ্ছাসেবীরা অনুষ্ঠানে ওই টি-শার্ট পরিহিত অবস্থায় ছিলেন। 

পরে শমী কায়সার ক্ষমা চেয়ে বলেন, এটি অত্যন্ত বাজে একটি দৃষ্টান্ত হলো। আবার ফোন তল্লাশির কথায় অনেকে কষ্ট পেয়েছেন, সাংবাদিকরা প্রতিবাদ করেছেন। আমি সত্যিই খুব দুঃখিত। এই ফোন দুটিতে আমার সবকিছু ছিল। ফোন দুটি হারিয়ে সত্যিই আমি কিছুটা ‘অপ্রস্তুত’ হয়ে পড়েছিলাম।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ