‘আমার নগ্ন ভিডিও খবর মা আর ড্রাইভারের মুখে প্রথম শুনেছিলাম’

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৯:০৩

সেবার তাঁর নগ্ন ভিডিও ক্লিপের ছবিতে তোলপাড় হয়ে গিয়েছিল নেটদুনিয়া। স্বয়ং ছবির পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপ এ ব্যাপারে পুলিশের শরণ নিয়েছিলেন। গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে অজ্ঞাতপরিচয় সেই ব্যক্তির উদ্দেশে, যিনি ইন্টারনেটে এ ভিডিও ‘লিক’ করেছেন। অথচ যাঁর ভিডিও তিনি ছিলেন নির্বিকার। জানিয়েছিলেন নিজের ন্যুড ভিডিও দেখে তাঁর লজ্জা বা রাগ নয়! বরং হাসিই পেয়েছিল।

আর এবার বললেন, “আমার ফাঁস হয়ে যাওয়া প্রথম নগ্ন ভিডিও ক্লিপ, ওয়াটঅ্যাপে আমার মাকে কেউ পাঠিয়েছিল। আর দ্বিতীয়বার যে ভিডিওটি লিক হয়েছিল, তার কথা আমার ড্রাইভার জানিয়েছিল”। আর এই বিষয় গুলি মোটেও গা’য়ে লাগান না নায়িকা। উলটে তাঁর সাফ কথা, ” এটায় লুকানোর কিছু নেই। আমার যা ইচ্ছা হয় আমি তাই করি। আর এটা নিয়ে খবর তৈরি করার কোনও মানেই হয় না।”

প্রসঙ্গত, প্রথমবার পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপের এক শর্ট ফিল্মের জন্য ন্যুড হয়েছিলেন রাধিকা। বিদেশেই সে ছবি মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সব রকম সতর্কতা নেওয়া সত্ত্বেও ফাঁস হয়ে যায় সে ভিডিও। ইন্টারনেটে সেই ভিডিও ছড়িয়ে পড়া মাত্র শোরগোল পড়ে যায়। তবে তা দেখেও নির্বিকার ছিলেন অভিনেত্রী। নিজের স্বপক্ষে কোনও কথা বলেননি৷। শুধু বলেছিলেন, “ভিডিওটি দেখে তাঁর হাসি পেয়েছিল। কেননা ভিডিওটি মজাদার”। এর সঙ্গেই তাঁর বক্তব্য ছিল, “তিনি যথেষ্ট ব্যস্ত। এসব করর মতো সময় তাঁর হাতে নেই। তিনি বা তাঁর পরিবারের উপর এ ভিডিও কোনও প্রভাব ফেলছে না বলেই জানিয়েছেন অভিনেত্রী।

দ্বিতীয়বার, ‘পার্চড’ ছবিতে তাঁর খোলামেলা কিছু ছবি ছড়িয়ে পড়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। নিন্দুকেরা বলছেন, জেনে বুঝে ছবির প্রচারের জন্য এমনটা করছেন রাধিকা নিজে। অনেকে আবার এটাকে রাধিকার দুর্ভাগ্য বলে মনে করছেন। সেবার অভিনেত্রী বলেছিলেন, ” এটা সত্যি অদ্ভুত বিষয়। ছবিতে অনেক ভাল দৃশ্য রয়েছে সেগুলি তো দেখানো হল না। বেছে বেছে যৌনতাকে রাখতে হল। আমাদের দেশের মানুষ সরাসরি যৌনতা নিয়ে কথা বলতে চায় না কিন্তু দেখুন যৌনতা নিয়ে এদেশে মানুষ এখনও অন্ধকারে তাইতো ‘পার্চড’ থেকে যৌনতাকে তুলে এসেছে তাঁরা।”

ক্যমারের সামনে বরাবর সাহসী রাধিকা। নায়িকা শিল্পের খাতিরে তিনি সব কিছু করতে পারেন। এক্ষেত্রে শরীর নিয়ে ছুৎমার্গ তাঁর নেই। নায়িকার কথায়, “শরীর যে কোনও অভিনেতার কাছেই খুব প্রয়োজনীয় একটি ‘টুল’ বা হাতিয়ার৷ অভিনয়ের ক্ষেত্রে যেটিকে একজন অভিনেতা ব্যবহার করতে পারেন৷ অতএব এ বিষয়ে কোনও আপত্তি তাঁর নেই। সঠিক পরিচালকের হাতে পড়লে তাঁর এই ‘টুল’ তিনি যে অভিনয়ের খাতিরে ব্যবহার করতে দ্বিধা করবেন না”।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ