আন্দোলনের কারণে বিদেশি ক্রেতারা সফর বাতিল করেছে: বিজিএমইএ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৬ আগস্ট ২০১৮, ১৯:২৮

ঢাকা, ০৬ আগস্ট, এবিনিউজ : নিরাপদ সড়কের দাবিতে চলমান শিক্ষার্থীদের আন্দোলন এবং অঘোষিত পরিবহন ধর্মঘটে নিরাপত্তাহীনতায় পোশাক শিল্পের অনেক বিদেশি ক্রেতা বাংলাদেশ সফর বাতিল করেছে বলে জানিয়েছে পোশাক মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ।

আজ সোমবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে বিজিএমইএ ভবনে চলমান ছাত্র আন্দোলন এবং উদ্ভুত পরিস্থিতি নিয়ে আয়োজিত জরুরি সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান এ কথা জানান।

তিনি বলেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে অনেক কারখানা স্টকলটের শিকার হবে। অনেক কারখানায় এয়ার ফ্লেইট করতে বাধ্য হবে। এর মাশুল দিতে হবে পোশাক শিল্পকে। আমরা যখন অ্যাকর্ড ও অ্যালায়েন্স এর সব শর্ত পূরণ করে নিজেদের মতো করে চলার প্রস্তুতি নিচ্ছি তখন এ ধরনের অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতি আমাদের পিছিয়ে দেয়। ক্রেতাদের আস্থা হানি ঘটে। শিল্পের ভাবমূর্তি ও দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়। এমন কোনও কর্মকাণ্ড আমরা চাই না, যাতে মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা বাধাগ্রস্ত এবং অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড ও ব্যবসা-বাণিজ্য পিছিয়ে দেয়।

সিদ্দিকুর রহমান বলেন, গত ২৯ জুলাই বাস দুর্ঘটনায় ২ শিক্ষার্থী রাজীব ও মিমের মৃত্যুর ঘটনায় আমরা মর্মাহত। তাদের রূহের মাগফেরাতসহ আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি। তাদের হত্যার বিচারের দাবিতে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা গত কয়েকদিন ধরে রাস্তায় আন্দোলন করছে। তাদের ধন্যবাদ জানাই, তারা প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে সড়ক ছেড়ে ঘরে ফিরে গেছে। নিরাপদ সড়ক আমাদেরও দাবি।

‘আমরা কখনোই কামনা করি না, সড়ক দুর্ঘটনায় একটিও প্রাণ ঝরে পড়ুক। তবে আমরা শঙ্কার সাথে লক্ষ্য করছি, ছাত্ররা ঘরে ফিরে গেলেও সড়ক যোগাযোগ এখনও স্বাভাবিক হতে পারেনি।’

তিনি বলেন, সড়ক ও মহাসড়কগুলোতে পর্যাপ্ত যানবাহন নামেনি। ফলে জনগণকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সবচেয়ে বেশি সংকটে পড়েছে রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক শিল্প। এই অস্থিতিকর পরিস্থিতিতে আমরা গত এক সপ্তাহে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক দিয়ে ঠিকমতো পোশাক শিল্পের আমদানি-রপ্তানিসহ পণ্য আনা-নেয়া করতে পারিনি। ফলে, বন্দরে কন্টেইনার ভর্তি রপ্তানির পণ্য পড়ে আছে। এদিকে জাহাজিকরণের অপেক্ষায় কারখানায় পড়ে আছে তৈরি পণ্য।

তাই দেশবাসীসহ সরকারের প্রতি এর সুষ্ঠু সমাধানের দাবি করেন পোশাক মালিকদের এই নেতা। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির সহ-সভাপতি (অর্থ) মোহাম্মদ নাসির, সহ-সভাপতি এস এম মান্নান কচিসহ অন্যান্য কর্মকর্তা।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ