মাদারীপুরে নিখোঁজের দুইদিন পর লাশ উদ্ধার, থানায় মামলা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৩ আগস্ট ২০১৮, ২২:০৪

মাদারীপুর, ০৩ আগস্ট, এবিনিউজ : মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার খাশেঁরহাট এলাকায় আড়িয়ালখাঁ নদী থেকে শুক্রবার সকালে মিঠু নামের এক ব্যক্তির মৃত দেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। লাশের সুরতহাল শেষে পুলিশ দুপুরে ময়নাতদন্তের জন্য মাদারীপুর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, মাদারীপুর সদর উপজেলার মইষেরচর এলাকায় হেমায়েত কাজীর ইটভাটায় পরিত্যাক্ত ঘরে জুয়ার আসরে পুলিশ আসছে এমন খবর পেয়ে জুয়ারীরা পাশের আড়িয়ালখাঁ নদীতে ঝাপিয়ে পরে। এতে সবাই সাতার কেটে পারে উঠলেও মিঠু সরদার(৩০) নামের এক যুবক নিখোঁজ থাকে। গত বুধবার সন্ধায় এ ঘটনা ঘটে। মিঠু সরদার ঝাউদি ইউনিয়নের ১ নং ওয়াডের পচ্চিম কুলপদ্দি এলাকার সাবেক পুলিশ সদস্য আলাউদ্দিন সরদারের ছেলে।

অনুসন্ধান ও একাধীক সুত্রে জানা গেছে, মাদারীপুর সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় দীর্ঘ কয়েক বছর যাবৎ চিহ্নিত জুয়ারু মিনু নামের এক লোক জুয়ার আসর পরিচালনা করে আসছে। আরও জানা যায়, সদর উপজেলার অনেক প্রবাবশালীদের নাম ভাংগিয়ে জুয়ারু মিনু বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। মিনুর ভয়ে এলাকাবাশি প্রতিবাদ করার সাহস পায়না।

নিহত মিঠু সরদারের মা কান্নাজরিত কন্ঠে অভিযোগ করে বলেন, ওখানে কোন পুলিশ আসেনি, আমার ছেলেকে পরিকল্পিত ভাবে মিনু ও তার লোকজনে হত্যা করেছে। আমার ছেলে, মিনু ও লুৎফরসহ কয়েক জনের কাছে প্রায় দশ লাখ টাকা পাওনা আছে। ওই টাকা না দেওয়ার জন্য এই জঘন্য হত্যা কান্ড ঘটিয়েছে। কারন আমার ছেলে ভালো সাতাঁর জানে পানিতে ডুবে তার মরার কথা না। আমার ছেলেকে যারা পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করেছে আমি তাদের ফাসিঁ চাই।

নিহত মিঠু স্ত্রীর রুমা আক্তার বলেন, আমার স্বামীকে মিনু ও জলিল সরদার ফোন দিয়ে বাসা থেকে বেড় করে নেয়, এর পর আমার স্বামী আর ঘরে ফিরে আসেনি। তাছারা লুৎফর মেম্বরের সাথে আমার স্বামীর পূর্বের শত্রুতা আছে, ওরা সবাই মিলে আমার স্বামীকে হত্যা করেছে। আমি আমার স্বামী হত্যার সঠিক বিচার চাই।
 
এবিষয়ে অভিযুক্ত মিনু জানায়, সদর থানার পুলিশ আসলে আমারা সবাই নদীতে ঝাপ দেই, এর থেকে মিঠু নিখোঁজ ছিলো। এই জুয়ারকোট আমি একা পরিচালনা করিনা, আমার সাথে কুলপদ্দি এলাকার জলিল সরদার, মহিষেরচর পাকামসজিদ এলাকার সোহেল মাদবর, পাচঁখোলা এলাকার জহু খান, পুরাবাজারের টুলু, ফেরিঘাট বাবনাতলার বোরহান মুন্সি, চরমুগরিয়ার বাচ্চু সরদার, লক্ষীগঞ্জ এলাকার মাহিদ চৌধুরী, এরা সবাই আমার সাথে জুয়ারকোট পরিচালনা করে।

মাদারীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ কামরুল হাসান জানান, মিঠু সরদার নামের এক যুবকের মৃত দেহ উদ্ধার করে হাসপাতাল মর্গে প্ররণ করা হয়েছে। এঘটনায় ৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞত আরো ৭/৮ জনকে আসামীকরে সদর থানায় মামলা হয়েছে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এবিএন/সাব্বির হোসাইন আজিজ/জসিম/রাজ্জাক

এই বিভাগের আরো সংবাদ