লালমনিরহাটে স্ত্রী নির্যাতন মামলায় স্বামী গ্রেফতার

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৮ আগস্ট ২০২০, ১০:২৬

স্ত্রীকে নির্যাতন করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার মামলায় লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার স্বাস্থ্য সহকারী ভবেশ চন্দ্র রায় ওরফে উত্তমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গত রাতে উপজেলার মহিষাশ্বহর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে আদিতমারী থানা পুলিশ।

গ্রেফতার ভবেশ চন্দ্র রায় ওরফে উত্তম উপজেলার পলাশী ইউনিয়নের বড়াইবাড়ি মহিষাশ্বহর গ্রামের মৃত নিরঞ্জন কুমার রায়ের ছেলে।

তিনি আদিতমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্বাস্থ্য সহকারী পদে কর্মরত।

মামলা সুত্রে জানা গেছে, ভবেশ চন্দ্র রায় উত্তম ২০০৯ সালের ২৪ আগস্ট মহিষখোচা গ্রামের মৃত জগদীশ চন্দ্রের মেয়ে বিথী রানীকে নোটারী পাবলিক ও সনাতন ধর্ম মতে বিবাহ করেন।

বিবাহের এক বছর না যেতেই যৌতুক লোভী ভবেশ চন্দ্র স্ত্রী বিথী রানীর কাছে যৌতুক বাবদ আড়াই লাখ টাকা দাবি করেন।

বিথীর গরিব বিধবা মা টাকা দিতে না পারলে পাষন্ড স্বামী উত্তম বিথীকে মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দেন এবং দ্বিতীয় বিয়ের হুমকী দেন।

বিষয়টি নিয়ে বিথী রানী আদালতের আশ্রয় নিয়ে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা (৭০/২০১০) দায়ের করেন।

এ মামলার বিচার কার্য শুরুর এক পর্যায়ে কৌশলী ভবেশ চন্দ্র আগামীতে যৌতুক দাবি করবেন না এবং স্ত্রীকে নির্যাতন বা দ্বিতীয় বিবাহ করবেন না মর্মে আপোস মীমাংসায়  লিখিত দিয়ে আদালত থেকে মামলার নিষ্পত্তি পান।

কিছু দিন আগে স্ত্রীর বিনা অনুমতিতে আপোষের শর্ত ভেঙে যৌতুক লোভী ভবেশ চন্দ্র দ্বিতীয় বিয়ে করেন। এটাতে বাঁধা দেয়ায় পুনরায় যৌতুকের আড়াই লাখ টাকা দাবি করে বিথী রানীর উপর নির্যাতনের চালায় ভবেশ চন্দ্র। গত ৮ আগস্ট যৌতুকের আড়াই লাখ টাকা আনতে জোর করে বাবার বাড়ি পাঠানোর চেষ্টা করে ভবেশ চন্দ্র। কিন্তু টাকা আনতে বাবার বাড়ি না যাওয়ায় বিথী রানীকে তার স্বামী ভবেশ ও শ্বশুর বাড়ির অন্যান্যোরা মিলে বেধম মারপিট করে টেনে হেছড়ে তার বাচ্চাসহ তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।

স্থানীয়দের সহায়তায় আদিতমারী হাসপাতালে ভর্তি হন আহত বিথী রানী।

এ ঘটনায় বিচার চেয়ে  ১৬ আগস্ট স্বামী ভবেশ চন্দ্রসহ তিন জনের বিরুদ্ধে বিথী রানী আদিতমারী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

সেই মামলায় অভিযান চালিয়ে বুধবার রাতে যৌতুক লোভী স্বামী ভবেশ চন্দ্র রায় ওরফে উত্তমকে গ্রেফতার করে আদিতমারী থানা পুলিশ।

আদিতমারী থানার ওসি সাইফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ভবেশকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকী আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যহত রয়েছে।

এবিএন/আসাদুজ্জামান সাজু/গালিব/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ