গাইবান্ধায় নতুন করে ৩জন করোনায় আক্রান্ত

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৬ আগস্ট ২০২০, ০২:০৮

গাইবান্ধায় গতকাল (বুধবার) নতুন করে আরো ৩জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাড়ালো ৬৮৮ জন। জেলায় চিকিৎসাধীন আছেন ৩১৬ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩৬০ জন এবং মারা গেছেন ১২ জন। মঙ্গলবার (০৪ আগস্ট) রাতে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সবশেষ পরিসংখ্যানে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

সিভিল সার্জনের অফিস থেকে জানানো হয়, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নতুন করে আরো ৩ জনের করোনা রিপোর্ট পজেটিভ আসে। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আক্রান্ত ৩ জনের মধ্যে সদরে ২ জন এবং গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় ১ জন রয়েছেন। জেলার ৭ উপজেলায় এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত ৬৮৮ জনের মধ্যে গোবিন্দগঞ্জে সর্বাধিক ২৩৪ জন (এরমধ্যে পৌর এলাকায় ১২০ জন) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া সদরে ১৭৬ (এরমধ্যে পৌর এলাকায় ১৩৮ জন), পলাশবাড়ীতে ৭৭ (এরমধ্যে পৌর এলাকায় ৪৮ জন), সাদুল্লাপুরে ৫৬, সাঘাটায় ৫০, সুন্দরগঞ্জে ৫৭ (এরমধ্যে পৌর এলাকায় ২৬ জন) এবং ফুলছড়ি উপজেলায় ৩৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

গাইবান্ধায় বর্তমানে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে ৩১৬ জন বিভিন্ন আইসোলেশনে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এরমধ্যে ১০৮ জন গাইবান্ধা সদরে, সুন্দরগঞ্জে ২৮ জন, সাদুল্লাপুরে ২২ জন, গোবিন্দগঞ্জে ৭৩ জন, সাঘাটায় ২৫ জন, পলাশবাড়ীতে ৩৪ জন ও ফুলছড়িতে ২৬ জন।
গাইবান্ধায় করোনাভাইরাসে সংক্রমণের সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে, তবে এরই মাঝে আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিয়ে জেলায় সুস্থ হয়ে উঠছেন অনেকেই। করোনাকে জয় করে জেলায় এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩৬০ জন। এরমধ্যে গাইবান্ধা সদরে ৬৬ জন, সুন্দরগঞ্জে ২৮ জন, সাদুল্লাপুরে ৩৩ জন, গোবিন্দগঞ্জে ১৫৭ জন, সাঘাটায় ২৫ জন, পলাশবড়ীতে ৩৯ জন ও ফুলছড়িতে ১২ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

জানা গেছে, এখন পর্যন্ত জেলায় মোট ১২ জন করোনা আক্রান্তরোগী মারা গেছেন। এরমধ্যে গোবিন্দগঞ্জে ৪ জন, সদরে ২ জন, সাদুল্লাপুরে ১ জন, পলাশবাড়ীতে ৪ জন এবং সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় আরও ১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদিকে গাইবান্ধার চার পৌর এলাকায় ক্রমাগত করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। গত ১৫ দিন জেলার গোবিন্দগঞ্জ, পলাশবাড়ী, সুন্দরগঞ্জ এবং গাইবান্ধা পৌর শহর ও আশেপাশের এলাকায় করোনা সংক্রামণ ক্রমাগত বাড়ছে। এ পর্যন্ত জেলায় আক্রান্ত ৬৮৫ জনের মধ্যে এই চার পৌর এলাকায় সংক্রমণের সংখ্যা ৩৩২ জন। এরমধ্যে গাইবান্ধা পৌরসভায় সর্বোচ্চ সংখ্যক আক্রান্ত ১৩৮ জন।

তবে করোনা সংক্রমণ নিয়ে স্থানীয়রা অনেকটাই অসচেতন। চলাচলে অসতর্কতা এবং সামাজিক দূরত্ব ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার স্বাস্থ্যবিধি কেউ সঠিকভাবে মেনে চলছেন না। সাধারণ মানুষ হাঁটবাজার, দোকানপাট ও রাস্তাঘাটে অবাধে চলাচল করছেন। চলছে চায়ের দোকানে আড্ডা। স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনে কমেছে প্রশাসনের নজরদারিও। এতে করোনার ভয়াবহ সংক্রমণের আশঙ্কা করছেন স্বাস্থ্যসেবা সংশ্লিষ্টরা।গাইবান্ধা সিভিল সার্জন ডা. এবিএম আবু হানিফ জানান, জেলায় করোনা ‘পজিটিভ কেসগুলোর অধিকাংশই এখন সুস্থ হওয়ার পথে’।

 

এবিএন/আরিফ উদ্দিন/জসিম/অসীম রায় 
 

এই বিভাগের আরো সংবাদ