খাজরায় কালিপদ বিশ্বাসের মৃত্যু নিয়ে গুঞ্জন শুরু

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৫ আগস্ট ২০২০, ০১:৩৪

আশাশুনি (সাতক্ষীরা) : আশাশুনি উপজেলার খাজরা ইউনিয়নে বৃদ্ধ কালিপদ বিশ্বাসের মৃত্যু নিয়ে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। আসলে তিনি স্ট্রোকে মারা গেছেন, না আত্মহত্যা, নাকি তাকে হত্যা করা হয়েছে? এমন প্রশ্ন তুলে এলাকায় আলোচনা শোনা যাচ্ছে। 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রতিবেশীরা জানান, খাজরা ইউনিয়নের তুয়ারডাঙ্গা গ্রামের মৃত শ্রীমোহন বিশ^াসের পুত্র কালিপদ বিশ^াস (৮০) এর ৪ পুত্র (কৃষ্ণপদ, মাষ্টার বিষ্ণপদ, প্রদীপ ও ত্রিদীপ) থাকলেও পুত্র ও পুত্রবধুদের সমাদরে তার জীবন চলছিলনা। এছাড়া পুত্রদের জমি লিখে দেওয়া ও সেজে পুত্র প্রদীপের ব্যাংক লোন পাইয়ে দিতে সহযোগিতা করাসহ নানা খুটিনাটি বিষয় নিয়ে তাকে কষ্টকর জীবন যাপনে বাধ্য করেছিল বাকী ৩ সন্তানরা। বাধ্য হয়ে সন্তানদের ছেড়ে অন্যের বাড়িতে আশ্রয় নিতে হয়েছে তাকে।

মৃত্যুর একমাস আগেও তিনি তার ভাইপো সঞ্জীব কুমার বিশ^াসের বাড়িতে ৩ মাস খাওয়া দাওয়া করতে বাধ্য হন। পুত্র প্রদীপের কিছুটা সুনজর থাকলেও বাকী পুত্র ও তাদের পরিবারের লোকজন ভাল ব্যবহার করতেন না তার সাথে, এমন অভিযোগ করে প্রতিবেশী ও এলাকায় গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে যে, পিতার প্রতি অসন্তুষ্টির জের ধরে গলাটিপে ধরলে তিনি মারা গেলে পেয়ারা গাছে গলায় দড়ি দিয়ে টানিয়ে দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন, প্রচার চালান হয়। 

গত ২৮ জুলাই ভোরে পঙ্কজ, বিকাশ ও অন্যরা গলার দড়ি কেটে তাকে নামিয়েছিল কিন্তু পুলিশী তদন্তের হাত থেকে রেহাই পেতে পরবর্তীতে তিনি স্ট্রোকে মারা গেছেন বলে প্রচার করে শ্মশানে নিয়ে শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হয়। এসময় পেয়ারা গাছটি কেটে ফেলান হয়। তাদের মায়ের মৃত নিয়েও গুঞ্জন শোনা গিয়েছিল। বিষয়টি তদন্ত পূর্বক প্রকৃত তথ্য উদঘাটনের জন্য এলাকাবাসী জোর দাবী জানিয়েছেন। 


এবিএন/ জি এম মুজিবুর রহমান/জসিম/অসীম রায়      
 

এই বিভাগের আরো সংবাদ