মাদারীপুরে শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২০ জুলাই ২০১৮, ২০:৫১

মাদারীপুর, ২০ জুলাই, এবিনিউজ : শিশু থেকে শুরু করে সব বয়সী নারী এখন ধর্ষণের শিকার। শিশু ধর্ষণ যেন এক প্রকার নিষ্ঠুরতার বিষয়। ঠিক এমনি এক ঘটনা ঘটেছে মাদারীপুরে। এই শহরে চার বছর বয়সী শিশুটিও নিরাপদ নয়। শিশুটিকে ধর্ষণের খাতায় লিখতে হলো নাম।

চার বছর বয়সী ওই শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে ৬০ বছর বয়সী এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি পলাতক রয়েছে। এদিকে শিশুটি অসুস্থ অবস্থায় মাদারীপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে।

স্থানীয় ও ভুক্তভোগী পরিবারের সুত্র জানায়, জেলার পৌর শহরের তরমুগরিয়া বালু ঘাট এলাকার এনাম মাতুব্বর বাড়ির দ্বিতীয় তলায় ভাড়াটিয়া মিতু বেগমের ঘরে গৃহপরিচারিতার কাজ করতো এক নারী। ওই নারীর সাথে তার চার বছর বয়সী শিশুটিও থাকতো। বাসায় কাজ করতো বারেক নামে আরো এক ব্যক্তি।

আজ শুক্রবার দুপুরের পরে মিতু পারিবারিক কাজে তার স্বজনের সাথে ঘরের বাহিরে যায়। তখন ঘরের ভিতরে ওই গৃহপরিচারিতা ও শিশুটি অবস্থান করছিল। হঠাৎ ঘরের মধ্যে প্রবেশ করে বারেক। কৌশলে বারেক ওই গৃহপরিচারিতাকে অন্যত্র পাঠায়। এই সুযোগে বারেক ওই শিশুটিকে নিয়ে বাসার ছাদে নিয়ে যায়। এরপরে শিশুকে প্রলভোন দেখিয়ে বাসার ছাদে নিয়ে ধর্র্ষণের চেষ্টা করে। শিশুটির চিৎকার করলে বাসার ভিতরে থাকা অন্যরা চলে এলে মিতুর সহযোগিতায় পালিয়ে যায় বারেক। পরে শিশুটিকে অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেয়া হয়।

শিশুটির মা অভিযোগ করে বলেন, ‘আমি মিতুর আপার বাসায় অনেক দিন ধরে কাজ করি। ওই বাসায় বাকের নামে লোকটা আমাকে প্রায়ই কুপ্রস্তাব দিত। কিন্তু আমি তার প্রস্তাবে রাজি না হলে বারেক আমাকে হুমকিও দিত। আমি তার কথা না শুনলে বারেক আমার এক মাত্র মেয়েটিকে মেরে ফেলতে এই জঘন্য কাজটি করতে চেয়েছিল। এ ঘটনায় আমি বারেকের বিচার চাই।’

মাদারীপুর সদর মডেল থানার পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল হাসান জানান, ‘আমি লোকমুখে এমন একটি কথা শুনেছি। বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। ভুক্তোভোগী শিশুর মা আমাদের এ বিষয় কিছুই জানায়নি। যদি সে আমাদের কাছে অভিযোগ করে তাহলে আমরা আইগ অনুযায়ী তদন্ত করে অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিব।’

এবিএন/সাব্বির হোসাইন আজিজ/জসিম/এমসি

এই বিভাগের আরো সংবাদ