নবজাতককে খালের পানিতে ভাসিয়ে দেয়ার ঘটনা টাকার বিনিময়ে ধামাচাপা

বোরহানউদ্দিনে প্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণ : ইউপি সদস্যসহ গ্রেপ্তার ৩

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৩ এপ্রিল ২০২০, ২১:১৩ | আপডেট : ২৩ এপ্রিল ২০২০, ২১:৩৪

ভোলার বোরহানউদ্দিনে প্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণ ও গর্ভপাত করে নবজাতককে খালের পানিতে ভাসিয়ে দেয়ার ঘটনা টাকার বিনিময়ে ধামাচাপা দেয়ার অপরাধে ইউপি সদস্যসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার রাতে এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ওই নারী বোরহানউদ্দিন থানায় ধর্ষণ, গর্ভপাত ও স্বাভাবিক বিচার কাজ ব্যহত করার আইনে একটি মামলা দায়ের করে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- উপ‌জেলার সাচড়া ইউনিয়নের স্থানীয় ৯ নং ওয়ার্ডের সদস্য শাহাজল হক ও রিকশা চালক আবু তাহের ও কৃষক সফিজল গণি।

স্থানীরা জানায়, বোরহানউদ্দিন উপজেলার সাচরা ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা স্বামী পরিত্যাক্তা শারীরিক প্রতিবন্ধী ৩৫ বছরের এক নারীর সাথে রিকশা চালক আবু তাহের ও কৃষক সফিজল গণি দীর্ঘদিন অবৈধ মেলামেশা করার পর এক পর্যায়ে মহিলাটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। গত তিনদিন আগে ঐ অন্তঃসত্ত্বা নারীর অকাল গর্ভপাত ঘটিয়ে মৃত নবজাতককে একটি খালে ভাসিয়ে দেয়া হয়। পরে, স্থানীয় এক ব্যাক্তি পানি থেকে মরদেহটি তুলে খালের পাড়ে মাটি চাপা দিয়ে রাখে।

এ ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর সাচড়া ৯নং ওয়ার্ড এর ইউপি সদস্য মোঃ শাহাজল হক স্থানীয়ভাবে ২ লাখ টাকার বিনিময়ে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার জন্য সালিশ বিচার করেক। পরে, খবর পেয়ে বুধবার (২২শে এপ্রিল) বিকাল সাড়ে ৫টায় বোরহানউদ্দিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ বশির গাজী ও বোরহানউদ্দিন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ এনামুল হক সঙ্গীয় ফোর্সসহ সাচড়া ইউ‌পির শিবপুর গ্রাম থেকে নবজাতকের মরদেহ উদ্ধার করেন।

বোরহানউদ্দিন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ এনামুল হক জানান, এ ঘটনায় ধর্ষিতা ওই নারী বাদি হয়ে বোরহানউদ্দিন থানায় ধর্ষণ, গর্ভপাত ও স্বাভাবিক বিচার কাজ ব্যহত করার আইনে একটি মামলা দায়ের করেছে। মামলার তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করে বৃহস্পতিবার আদালতে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ