আক্কেলপুরে বাড়ি বাড়ি খাবার পৌছে দিচ্ছেন ইউএনও

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৯ এপ্রিল ২০২০, ১২:১৩

গভীর রাতে আক্কেলপুর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে মধ্যবিত্তদের বাড়িতে খাবার পৌছে দিচ্ছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাকিউল ইসলাম। বাড়ির মালিকদের বলছেন বাড়ির বাহিরে আর তোমাদের খাবারের জন্য বের হতে হবে না। ফোন করলেই খাবার পৌছে দেয়া হবে বাড়ীতে। আপনারা বাড়ীতে অবস্থান করুন।

এমনই কয়েকজন ফোন করে খাবার চাওয়াই জয়পুরহাটের আক্কেলপুর ইউএনও জাকিউল ইসলাম রাতে রেলস্টেশন সংলগ্ন তৃতীয় লিঙ্গ জনগোষ্ঠীর আটজনের একমাসের খাবার বাড়িতে পৌছে দিলেন তিনি।

একইভাবে সমাজে মধ্যবিত্তের ফোন পেয়ে ওই রাতেই রেলস্টেশন সংলগ্ন এক মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে চিকিৎসার টাকা ও খাবার, উপজেলার রামশালা গ্রামের দুই পরিবার, কুরানো বাজার এলাকায় চার পরিবার, পৌরসদরের সিদ্দির মোড় এলাকার দুই মধ্যবিত্ত পরিবারকে খাবার পৌছে দিলেন ইউএনও।

জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতিতে উপজেলার সব দোকানপাট বন্ধ। বাড়ির বাহিরেও চলাচলে নিষেধাজ্ঞা। সমাজের মধ্যবিত্তদের অনেকের ঘরে খাবার ফুরিয়ে গেছে। তারা নিজ আত্মসম্মানের কারণে কোন জনপ্রতিনিধির কাছে খাবার চাইতেও পারছিলেন না। বাধ্য হয়ে ইউএনওর কাছে ফোন করে খাবার চাইলেই মিলছে মধ্যবিত্তের খাবার। রাতে লোকলজ্জার অন্তরালে বাড়িতে গিয়ে পৌছে দেওয়া হচ্ছে খাবার।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে একই ব্যক্তি বলেন, বাজারে ছোট একটা ঢোপের দোকানে কাপড় বিক্রি করে সংসার চলে আমার। গত কয়েকদিন ধরে দোকানটি আমার বন্ধ। বাড়িতে খাবার ফুরিয়ে গিয়েছিল। লোকলজ্জায় লাইনে দাঁড়িয়ে কোন জায়গা থেকে খাবারও নিতে পারছিলাম না। পরিবার নিয়ে ঘরে নিরবে কাঁদছিলাম। উপায় না পেয়ে ফোন করেছিলাম ইউএনও কাছে।

তিনি তখন জানিয়েছিলেন চিন্তা নেই কেউ জানবে না, রাতে আপনার বাড়িতে খাবার পৌছে দেওয়া হবে। রাত সারে নয়টায় ইউএনও নিজে গাড়িতে করে খাবার পৌছে দিয়েছেন।

ইউএনও জাকিউল ইসলাম বলেন, সমাজে অনেক মধ্যবিত্ত পরিবার আছে যারা নিজ আত্মসম্মানের কারণে প্রকাশ্যে কারো কাছে কোন কিছু চাইতে পারেন না। নিরবে কষ্টে তাদের দিন চলে যায় কেউ বুঝতেও পারে না। সরকার তাদের গোপনে বাড়িতে খাবার পৌছে দিচ্ছেন। আর আমি তা নিজ গাড়িতে করে ওই পরিবারগুলোর বাড়িতে খাবার পৌছে দিয়ে যাচ্ছি।

এবিএন/আতিউর রাব্বী তিয়াস/গালিব/জসিম

 
 

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ