করোনা আতংকে বকশীগঞ্জে ১৪ ঘন্টা পর লাশ দাফন

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৬ মার্চ ২০২০, ১০:৪০

করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে পড়ায় ১৪ ঘন্টা পর বৃদ্ধা খুকির লাশ দাফনের অনুমতি দিয়েছে জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন।

বকশীগঞ্জ উপজেলার উত্তর কুশল নগর গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে সরকারি নিয়ম মাফিক খুকির লাশ দাফন করা হয়।   
 
জানা গেছে, বকশীগঞ্জ উপজেলার কুশল নগর গ্রামের আব্দুল কাদেরের স্ত্রী খুকি বেগম ২১ মার্চ ঢাকা থেকে বকশীগঞ্জে আসেন। ২৪ মার্চ  মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টায় খুকি বেগমের মৃত্যুর খবরটি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত বলে প্রচারিত হয়। অবশ্য, খুকির স্বজনদের দাবি বার্ধক্যজনিত কারণে খুকি শ্বাসকষ্টে মারা গেছেন।  

জামালপুর জেলা সিভিল সার্জন শ্রী গৌতম রায়, বকশীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আ.স.ম জামশেদ খোন্দকার, উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা ডা. প্রতাপ নন্দীসহ প্রশাসনিক একটি টিম ঘটনাস্থলে যান। প্রশাসনের কথামতো খুকির লাশ দাফনে বিরত থাকে তার পরিবার। খুকির বাড়ির চারপাশে লাল পতাকা দিয়ে জনসাধারণের প্রবেশ সীমিত রাখা হয়।

জামালপুরের সিভিল সার্জন শ্রী গৌতম রায় ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার আ.স.ম জামশেদ খোন্দকারের উপস্থিতিতে গঠিত মেডিকেল টিম খুকির মরদেহ থেকে “নেজাল সোয়াব” সংগ্রহ করে ল্যাব টেষ্টের জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়। নেজাল সোয়াব সংগ্রহের পর প্রশাসের অনুমতি নিয়ে পুলিশের উপস্থিতিতে পরিবারের লোকজন খুকির লাশ দাফন করেন।

এ ব্যাপারে খুকির বড় ছেলে মান্নান জানান, আমার মায়ের স্বাভাবিক মৃত্যু  হয়েছে। গুজব ছড়ানোর কারণে কাফনে বিলম্ব হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আ.স.ম জামশেদ খোন্দকার, স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা ডা. প্রতাপ নন্দী মঙ্গলবার রাতে সাংবাদিকদের জানান, মৃত বৃদ্ধা খুকি বেগমের নাক থেকে নেজাল সোয়েব সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিক ধারণায় করোনা ভাইরাসের কোন লক্ষন পাওয়া যায়নি। রিপোর্ট না পেলে কিছু বলা সম্ভব হচ্ছেনা।

মৃত খুকির পরিবারের লোকজনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

এবিএন/মো. শাহ্ জামাল/গালিব/জসিম

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ