কালীগঞ্জে মাদ্রাসাছাত্রী হত্যা মামলার আসামি গ্রেপ্তার

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৭ মার্চ ২০২০, ১৪:২৪

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে মাদ্রাসাছাত্রী কেয়া খাতুনের বস্তাবন্দি অর্ধগলিত লাশ উদ্ধারের ঘটনায় মূল হোতা মিলনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। 

গতকাল সোমবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর থানার হাসাদাহ এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। কেয়া হত্যার প্রধান আসামি মিলন কালীগঞ্জের ত্রিলোচনপুর গ্রামের সলেমানের ছেলে। 

গ্রেপ্তারকৃত মিলন ছাড়াও এই চাঞ্চল্যকর কেয়া হত্যা মামলায় অপর দুই আসামি এখনো পলাতক রয়েছে। পুলিশ তাদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা করছে। 

উল্লেখ্য, গত ২৬ ফেব্রুয়ারি কেয়া নিজ বাড়ী থেকে নিখোঁজ হয়। নিখোঁজের ১৭ দিন পর ১৩ মার্চ ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার দাদপুর-ত্রিলোচনপুর মাঠের মধ্যবর্তী স্থানের একটি কলাক্ষেত থেকে কেয়া খাতুন এর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। 

নিহত ছাত্রীর পিতা সামাউল ম-ল জামা-কাপড় ও পায়ের সেন্ডেল দেখে লাশ শনাক্ত করে ।

সেই দিনই নিহতের পিতা সামাউল ম-ল বাদী হয়ে কালীগঞ্জ থানায় ৩ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। তবে মামলার তদন্তের স্বার্থে পুলিশ অপর দুই আসামির নাম প্রকাশ করেননি। 

কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহা. মাহফুজুর রহমান মিয়া বলেন, নিহত কেয়া মাদ্রাসাছাত্রী নয়। সে গৃহবধূ। কিছুদিন আগে নরেন্দ্রপুর গ্রামের মনছুর মালিথার ছেলে সাবজেল হোসেনের সাথে তার বিয়ে হয়। 

থানায় মামলার পর পুলিশ ও র‌্যাব যৌথ অভিযান চালিয়ে চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর উপজেলার হাসাদহ থেকে মামলার প্রধান আসামি মিলনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।  তার কাছ থেকে হত্যাকান্ডের বিষয়ে অনেক তথ্য পাওয়া গেছে। 

আজ মঙ্গলবার দুপুরে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি প্রদানের জন্য তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। 

এবিএন/যবনিকা/গালিব/জসিম
 

এই বিভাগের আরো সংবাদ