বাংলাদেশের উন্নয়নে নারীদের অংশগ্রহণ দৃশ্যমান : স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৫:২৪

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারী ক্ষমতায়নের পথিকৃত। বিশ্বে বাংলাদেশ আজ নারী ক্ষমতায়নের রোল মডেল। রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে তরুণ নারী সমাজ এগিয়ে আসলে অচিরেই সমৃদ্ধ সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠিত হবে। 

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ও বিকেলে পৃথক পৃথক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতাকালে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি এসব কথা বলেন। 

সকাল থেকে নিজ বাসভবনে সাধারণ মানুষ ও নেতাকর্মীদের সাথে গণসংযোগের পর দুপুরে উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে মহিলা আওয়ামী লীগের ৫১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে যোগ দেয় স্পিকার। 

বিকেলে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের আওতায়” পল্লী কর্মসংস্থান ও সড়ক রক্ষণাবেক্ষণ কর্মসূচি-৩ (আরইআরএমপি-৩) শীর্ষক প্রকল্পের অধীন ইউনিয়ন ভিত্তিক রক্ষণাবেক্ষণ কর্মী চূড়ান্তকরণের লটারি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন। 

এ সময় ১৫টি ইউনিয়ন থেকে ১৫০জন কর্মী ৭৫০০ টাকা বেতনে চার বছরের জন্য নিয়োগ দেওয়া হয়। কর্মীদের থেকে প্রতিদিন ৮০ টাকা করে বাধ্যতামূলকভাবে সঞ্চয় হিসেবে যৌথ অ্যাকাউন্টে রাখা হবে। চার বছর পর লভ্যাংশসহ তাদের প্রদান করা হবে। দীর্ঘক্ষণ ধরে স্পিকার লটারী কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করেন। এতে সভাপতিত্ব করেন এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী রেজাউল করিম।

এর আগে স্পিকার জেলা পরিষদের উদ্যোগে প্রতিবন্ধীদের মাঝে ৪৫টি হুইল চেয়ার, সমাজসেবা অধিদপ্তরের উদ্যোগে ক্ষুদ্র নৃ-তাত্ত্বিক জনগোষ্ঠির উপকার ভোগী ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও মুজিববর্ষ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু যুব ঋণ কর্মসূচিীর আওতায় বেকার যুবক-যুবতীদের মাঝে ঋণের চেক বিতরণ করেন।

স্পিকার বলেন, ভাষা আন্দোলনসহ বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম ও সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলনে নারীদের ভূমিকা অনস্বীকার্য। বর্তমান বাংলাদেশের উন্নয়নেও নারীদের অংশগ্রহণ দৃশ্যমান। অর্থনীতির মূলস্রোতে নারীদের সম্পৃক্ততা বৃদ্ধি করতে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। 

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে নারীদের এগিয়ে যেতে হবে। যারা বঙ্গবন্ধু, স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাস করবে তারাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে পারবে।

মহিলা আওয়ামী লীগের ৫১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ও মুজিববর্ষের প্রাক্কালে সকল নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান তিনি। 

তিনি বলেন, ২৩ ফেব্রুয়ারি মহিলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী এমন এক শুভ দিনে যে, ১৯৬৯ সালে ২৩ ফেব্রুয়ারি জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানকে ‘বঙ্গবন্ধু’ উপাধিতে ভূষিত করা হয়েছিল। শেষে স্পিকার পীরগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে ”বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল” স্থাপনের জায়গা পরিদর্শন করেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. আজিজুর রহমান রাঙ্গা, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. সাফিয়া খানম, পীরগঞ্জ উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম, ভাইস চেয়ারম্যান শফিউর রহমান মন্ডল মিলন, রওশন আরা আলম রীনা, আওয়ামী লীগ নেতা রওশন আরা ওয়াহেদ রানী, শাহিদুল ইসলাম পিন্টু, মকবুল হোসেন সরদার, যুবলীগ নেতা মাজহারুল আলম মিলন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান রনিসহ জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সকল সহযোগী সংগঠনের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। 

এবিএন/মাজহারুল আলম/গালিব/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ