আড়াইহাজারে যুবতীকে অপহরণের পর আটককে রেখে ধর্ষণ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৫ জুলাই ২০১৮, ১৮:২৪

আড়াইহাজার, ০৫ জুলাই, এবিনিউজ : নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের মোল্লারচর এলাকায় মামার বাড়িতে বেড়াতে এসে এক যুবতী অপহরণের শিকার হয়েছেন। পরে তাকে নরসিংদীর মাধবদী এলাকায় একটি পরিত্যক্ত ঘরে দুইদিন আটককে রেখে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ এনে ওই যুবতী নিজে বাদী হয়ে আড়াইহাজার থানায় পাঁচজনকে আসামি করে একটি মামলা করেছেন।

আসামীরা হলেন- উপজেলার মোল্লারচর এলাকার মৃত তমিউউদ্দিনের ছেলে রবিউল আউয়াল (২৫) মৃত আফছর আলীর ছেলে মতিন (৬০), মতিনের স্ত্রী জাহানারা (৫০) মাধবদী দিঘিরপাড়া এলাকার ফজলুল হকের ছেলে আমির হোসেন (২৬) ও পিতা অজ্ঞাত খিলগাও মাধবদী এলাকার শাহজালাল (৩০)।  

মামলার বিবরণ থেকে জানা গেছে, চট্রগ্রাম জেলার মিরেরসরাই থানাধীন বত্তাকিয়া বাজার এলাকার ফজলুল হকের মেয়ে উক্ত মামলার বাদী তার মামা বাড়ি আড়াইহাজার উপজেলার মোল্লারচর এলাকায় প্রায় সময় বেড়াতে আসেন। এরই সূত্র ধরে দুইমাস আগে স্থানীয় যুবক রবিউল আউয়াল তাকে বিয়ে প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। এ বিয়েতে ওই যুবতীর পরিবারের কেউ রাজি হচ্ছিল না।

পরে সে মামার বাড়ি থেকে চলে যায়। ২৬ জুন তিনি ফের মামার বাড়িতে বেড়াতে আসেন। ওইদিনই সন্ধ্যায় তার মুখ চেপে ধরে তাকে অপহরণ করা হয়। পরে সে অজ্ঞান হয়ে যায়। জ্ঞান ফিরলে তিনি দেখতে পান মাধবদী এলাকায় একটি টিনসেট ঘরে আটক রয়েছেন। পরে তাকে দুই যুবক দুইদিন জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন।

তিনি মামলায় আরও উল্লেখ করেছেন, এ ঘটনাটি জানাজানি না করতে ভয়ভীতি দেখিয়ে একটি খালি স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নিয়ে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে আড়াইহাজার থানার ওসি এম হক বলেন, আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান চালানো হচ্ছে।

এবিএন/এম এ হাকিম ভূঁইয়া/জসিম/রাজ্জাক

এই বিভাগের আরো সংবাদ
well-food