ভালুকা মডেল থানার ওসির নেতৃত্বে প্রতি ইউনিয়নে ক্যাম্পিং

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৩ জানুয়ারি ২০২০, ১৭:৪৮

‘মুজিব বর্ষের অঙ্গিকার পুলিশ হবে জনতার’ এই শ্লোগানকে বাস্তবে রুপ দিতে অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন ভালুকা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাইনউদ্দিন। পুলিশকে জনবান্ধব ও জনগনের কাছাকাছি নেওয়ার অঙ্গিকার নিয়ে উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের মুক্তিযোদ্ধা,কমিউনিটি পুলিশ,জন প্রতিনিধি ও সাধারণ জনগনকে নিয়ে পুলিশের  কার্যক্রম ও ঘুষমুক্ত জিডি,মামলা এবং থানায় সাধারণ জনগন যাতে অবাধে সেবা নিতে পারে সেই লক্ষ্যে এই ক্যাম্পিং কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। তাতে সাধারণ জনগনের ব্যাপক সাড়া মিলছে। থানায় নিজে এসে নিজের কাজ করার ব্যাপারে তিনি জনগণকে অবহিত করছেন।

ইতিমধ্যে তিনি ভালুকা থানাকে দালাল মুক্ত ঘোষনা করছেন। পুলিশকে ভয় নয় বন্ধু হিসাবে দেখতে তিনি ভালুকার প্রতিটি মানুষকে থানায় এসে সেবা নিতে বলছেন।ওসি’র নেতৃত্বে উপজেলার ডাকাতিয়া,বিরুনীয়া,মেদুয়ারী রাজৈ,উথুরায় ইতিমধ্যে এই ক্যাম্পিং কার্যক্রম শেষ হয়েছে।  ওসি’র এই ক্যাম্পিং এ বর্তমানে বদলে গেছে ভালুকা থানার দৃশ্যপট। মানুষ নিজে এসে ওসির সাথে দেখা করে তাদের সমস্যার কথা বলছেন এবং হাসি মুখে সেবা নিয়ে যাচ্ছেন।

ডাকাতিয়া ইউনিয়নের কাতলামারী গ্রামের ইন্নছ আলী থানায় এসেছেন একটি মামলা করতে । তার প্রতিবেশী তাকে বেদম পিটিয়ে তার একটি পা পঙ্গু করে দিয়েছেন। সে থানায় এসে ওসি’র সাথে দেখা করে ঘটনা খুলে বললে ওসি আন্তরিকতার সাথে তাকে সেবা দিয়েছেন। তিনি জানান,বিনা টাকায় তিনি মামলা করেছেন। তার মুখে তখন তৃপ্তির হাসি ও চোখে আনন্দের জল। তিনি বলেন ওসি সাহেব অনেক ভাল আল্লাহ তার মঙ্গল করুক।

ডাকাতিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সাইফুল ইসলাম জানান, ভালুকা মডেল থানার ওসি মাইনউদ্দিন সাহেব যোগদান করার পর থেকে ভালুকায় আইনশৃঙ্খলার অনেক উন্নতি হয়েছে।ওনি প্রথমে ডাকাতিয়া ইউনিয়ন থেকে ক্যাম্পিং কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। ওনার ক্যাম্পিংয়ে মানুষ উবৃদ্ধ হয়ে থানায় নিজে গিয়ে নিজের কাজ করছেন । এটা অনেক ভাল লক্ষন। এই ধারাবাহিকতা যেন সামনেও বজায় থাকে।

ভালুকা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক মোঃ আক্কাছ আলী জানান.বর্তমান ওসি’র এই ক্যাম্পিং ভালুকায় ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। মানুষ এটাকে সাদরে গ্রহণ করেছে। তাছারা তিনি একজন সাংবাদিক বান্ধব পুলিশ অফিসার। তিনি ভালুকায় যোগদান করার পর হতে থানায় সেবার মান অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে।  

ভালুকা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ মাইনউদ্দিন জানান,আমি প্রতিটি ইউনিয়নে গিয়ে মানুষকে পুৃলিশের কাজ সমন্ধে বুঝাবার চেষ্টা করি। একটা সময় ছিল মানুষ পুলিশকে ভয় পেত এখন দৃশ্যপট আলাদা মানুষ যাতে দালাল মুক্ত হয়ে নিজে গিয়ে নিজের কাজ করতে পারে সেটা বুঝানোর জন্যই আমার এই ক্যাম্পিং। পুলিশকে ভয় নয় বন্ধু ভেবে থানায় আসুন নিরাপদে সেবা নিয়ে যান। আমি ভালুকাকে একটি মাদক,জুয়া,ইভটিজিং মুক্ত বাসযোগ্য একটি পরিবেশ সৃষ্টি করার জন্য প্রথমে ইউনিয়ন ওয়ারি পরবর্তিতে প্রতিটি গ্রামে গ্রামে গিয়ে  এই ক্যাম্পিং করবো। যাতে ভালুকা মডেল থানা পুলিশ জনবান্ধব পুলিশ হয়।

 
এবিএন/জাহিদুল ইসলাম/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ