রাজবাড়তে হাত কাটার ঘটনায় পলাতক ২ আসামী গ্রেফতার

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৩ জানুয়ারি ২০২০, ১৮:২৬ | আপডেট : ১৩ জানুয়ারি ২০২০, ১৮:৫২

রাজবাড়ী সদর উপজেলার আলীপুর ইউনিয়নের কল্যাণপুরে মোঃ শাহিন খানের হাত কাটার ঘটনায় এজাহারভুক্ত পলাতক দুই জন আসামীকে গ্রেফতার করেছে সদর থানার পুলিশ।

গতকাল (১২ জানুয়ারি) রবিবার দিবাগত ভোর রাত সাড়ে ৩টার দিকে সুলতানপুর ও ঢাকা জেলার সাভার উপজেলার রমনা কালি মন্দির এলাকা থেকে আসামীদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতকৃতরা হলো আমিন হক রারীর ছেলে আহসান হাবিব লালু (৩০), সরুজ লাঠিয়ালের ছেলে শাহ আলম ২৮ এদের দুজনের বাড়িই কলাণপুর গ্রামে। তবে আমালার প্রধান আসামী ইসমাইল গাজী এখনো পলাতক রয়েছে।

উল্লেখ্য ০৪ আগষ্ট দুপুরে কল্যাণপুর সিদ্দিকিয়া মাাদ্রাসার সামনে শাহিনকে ডেকে নিয়ে দুই হাতের গিরার নিচের পুরো অংশ কেটে দিয়ে ছিল আসামীরা।

এবিষে পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান সাংবাদিক সম্মেলন। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন  আসামীরা শাহিনের খুব ঘনিষ্টজন ছিল এবং তাদের নিজেদের মধ্যে অভ্যন্তরীণ কন্দোলের কারনেই এই ঘটনা ঘটেছিল। শাহিন খানের স্ত্রীর কে নিয়ে ইসমাইল গাজিকে সন্দেহ করে শাহিন খান ও তার লোকজন মিলে ইসমাইল গাজীকে হত্যার উদ্যেশে মারপিট করে ও গালায় ছুরিও ধরে ছিল কিন্তু  কপাল গুনে ইসমাইল বেচেঁ যায়। তার পর থেকেই ইসমাইল গাজী শাহিন খানের উপড় প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য সুযোগ খোঁজে।

রিতিমত সুযোগ বুঝে গত ০৪ আগষ্ট দুপুরে কল্যাণপুর সিদ্দিকিয়া মাাদ্রাসার সামনে শাহিনকে ডেকে নিয়ে দুই হাতের গিরার নিচের পুরো অংশ কেটে ফেলে। এঘটনায় এ ঘটনায় শাহিনের পিতা হাসেম খান স্থানীয় আব্দুর রহমান গাজীর ছেলে ইসমাইল গাজী সহ ৫ জনকে ও আরো অজ্ঞাত ৩ থেকে ৪ জনের নামে মামলা দায়ের করে। কিন্তু ঘটনার ঘটিয়ে আসামীরা পালিয়ে যায়। পুলিশ গত প্রায় ৫মাস যাবৎ আসামীদের ধরার জন্য বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা আসছিল। দীর্ঘ ৫মাসের কষ্ট সফল হয়েছে। এই অভিযানের নেতৃত্ব দেন রাজবাড়ী সদর থানার এসআই হিরোন কুমার বিশ্বাস।

এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সালাউদ্দিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হেটকোয়াটার মোঃ ফজলুল করিম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল) পাংশা লাবিব আব্দুলাহ, সদর থানার ওসি স্বপন কুমার মজুমদার।


এবিএন/খন্দকার রবিউল ইসলাম/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ