মুন্সীগঞ্জ আইনজীবি সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ আলী ও সম্পাদক আলমগীর

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৯ জুন ২০১৮, ২০:১৭

মুন্সীগঞ্জ, ২৯ জুন, এবিনিউজ : মুন্সীগঞ্জ জেলা আইনজীবি সমিতি নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ সমর্থিত মোহাম্মদ আলী-আলমগীর পরিষদের ব্যাপক সাফল্য আর জাতীয়তাবাদী আইনজীবি ঐক্য পরিষদের সমর্থিত তোতা-সাইফুল প্যানেলের বিপর্যয় ঘটেছে। বঙ্গবন্ধু আইনজীবি পরিষদ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবি পরিষদ মনোনীত সভাপতি পদে মোহাম্মদ আলী ৩৩২ ভোটের মধ্যে ১৯৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছে। এই প্যানেলেরই সাধারণ সম্পাদক পদে মুহাম্মদ আলমগীর কবির ১৯৪ পদ পেয়ে বিজয়ী হন। 

এ প্যানেলের অন্যান্য বিজয়ীরা হলেন সহ-সভাপতি পদে রিয়াজুল ইলাম মানিক, সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে মোঃ হাবিবুর রহমান খান, দপ্তর সম্পাদক মোহাম্মদ আলী আশরাফ (সেলিম), কোষাধ্যক্ষ পদে মোঃ ফিরোজ খান, ধর্ম বিষয়ক ও সমাজ কল্যাণ পদে সাইফুল ইসলাম লিটন, কার্যকরী সদস্য পদে প্রণয় চক্রবর্তী ও গাজী শাহরিয়ার (রকি) জয়লাভ করেন। 

অপরদিকে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য পরিষদ মনোনিত মোঃ তোতা মিয়া-সাইফুল পরিষদের বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন সহ-সভাপতি পদে মুহাম্মদ মজিবুর রহমান শেখ, সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে মোঃ মনিরুল ইসলাম, লাইব্রেরী সম্পাদক পদে মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন ঢালী, ক্রীড়া সম্পাদক পদে মোঃ মাহবুবুর রহমান তুহিন, কার্যকরী সদস্যপদে মোঃ জয়নাল আবেদীন (মেহেদী), মোঃ নুর হোসেন বেপারী ও মোঃ আরফান সরকার (খোকন) জয়লাভ করেন। জাতীয়তাবাদী আইনজীবি ঐক্য পরিষদের বিপর্যয় পূর্বে বর্তমানের মতো এতোটা ঘটেনি। ফলে বর্তমান ফলাফল নিয়ে সমালোচনার তোপে পড়েছে তোতা-সাইফুল পরিষদ। 

অন্যদিকে, মোহাম্মদ আলী-আলমগীর পরিষদে ব্যাপক সফলতার কারণে আলোচনার লাইম লাইটে এসেছে এ পরিষদ। মোট পনেরটি পদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ৯টি গুরুত্বপূর্ণ পদে আওয়ামী লীগ পরিষদ বিজয়ী হয়েছে। মোহাম্মদ আলী ও মুহাম্মদ আলমগীর কবির ভোটের লড়াইয়ে মোঃ তোতা মিয়া ও মোঃ সাইফুল এর ভোটের ব্যবধান অনেক হওয়ায় এখানেও ব্যাপক আলোচনার ঝড় উঠেছে। জাতীয়তাবাদী পরিষদ একটি সহ-সভাপতি পদ ছাড়া অন্য কোন গুরুত্বপূর্ণ পদে আসতে পারেনি। এরা মোট ৬টি পদে বিজয়ী হয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ পদগুলি আওয়ামী পরিষদের হওয়ায় তাদের এ সফলতায় মনোবল বহুগুনে এখন চাঙ্গা। 

এবিএন/আতিকুর রহমান টিপু/জসিম/রাজ্জাক

এই বিভাগের আরো সংবাদ