গলাচিপায় মাদকসেবী ও বিক্রেতা আত্মসমর্পণকারীকে ফুল দিয়ে বরণ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৩:৪১

"মাদক" একটি সমাজিক মরণব্যাধী মহামারী আক্রমণ ভাইরাস। সুন্দর ও জীবন সমাজ গড়তে পটুয়াখালীর গলাচিপা থানার আয়োজনে পটুয়াখালী জেলা পুলিশ সুপারের উদ্যোগে  উপজেলায় আজ ২১ সেপ্টেম্বর শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার সময় সমাজসেবী ও শিক্ষক মো. হুমায়ুন কবিরের উপস্থাপনায় ওসি আখতার মোর্শের সভাপতিত্বে গলাচিপা শেখ রাসেল মিনি স্টিডিয়াম প্রাঙ্গণে চারজন পুরুষ এবং এক নারীসহ মোট পাঁচজন আত্মসমর্পণ কৃত  মাদকসেবীদের ফুল ও উপহার সামগ্রী, পৌর মেয়র কর্তৃক নগত ২ হাজার টাকার চেক দিয়ে বরণসহ পুনর্বাসন  এবং বিট পুলিশিং কার্যালয় উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি পটুয়াখালী জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মঈনুল হাসান, পিপিএম।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন সহকারী পুলিশ সুপার মো. হাফিজুর রহমান, গলাচিপা উপজেলা আওয়ামী লীগ এর সভাপতি অধ্যক্ষ সন্তেষ কুমার দে, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. নিজাম উদ্দিন, অনা মার্জিয়া মিতু, পৌর মেয়র আহছানুল হক তুহিন, গলাচিপা থানার ওসি মো. আখতার মোর্শেদ, প্রেস ক্লাবের সভাপতি খালীদ হাসান মিল্টন, সাধারণ সম্পাদক মো. সোহাগ রহমান, সাংবাদিক মু. জিল্লুর রহমান জুয়েল, সঞ্জিব দাস, মো. জসিম উদ্দিন, রিপন বিশ্বাসসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক্স সাংবাদিক এবং বিভিন্ন স্থানের সুশিল সমাজের জনসাধারণ। 

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে "মাদকসেবী ও বিক্রেতাদের উদ্দেশ্যে বলে বিভিন্ন সমাজিক উদ্যোগে পুলিশি সহায়তায় এ পর্যন্ত অর্ধ শতাধিক, "মাদকসেবী ও বিক্রেতারা আত্মসমর্পণ করে তাদের অন্ধকার জীবন থেকে আলোর জীবনে ফিরে এসেছেন। কারণ তারা বুঝতে পেরেছে যে 'মাদক"  সমাজের ঘৃণিত অপরাধ। এ থেকে সরে এসে নিজের এবং সমাজকে সুন্দর পরিবেশ ফিরিয়ে আন্তে হবে।

মঈনুল হাসান আরো বলেন যদি সমাজের " মাদকসেবী ও বিক্রেতা নিজেদের সংশ্লিষ্ট থানায় এসে আত্মসমর্পণ করে, তাহলে বাংলাদেশ পুলিশ বা আইনশৃংঙ্খলা বাহিনী তাদের সাধুবাদ জানাবে। এবং তাদের পুনর্বাসন করে সুন্দর একটি জীবন গড়তে সহায়তা করবেন। আর যদি তারা সমাজের এ ঘৃণিত অপরাধ থেকে ফিরে না আসে তাহলে পুলিশ প্রশাসন কঠিন হস্থে তা দমন করে সমাজ থেকে "মাদক" মুক্ত করার অভিযান অভ্যাহত থাকবে বলে হুশিয়ারি দেন পুলিশ সুপার মহাম্মদ মঈন হাসান।

পরে বেলা সোয়া ১২ টারসময় একই স্থানে শান্তির প্রতীক পায়রা উরিয়ে বিট পুলিশিং কার্যালয় শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করে গলাচি উপজেলা ত্যাগ করেন।

এবিএন/মু. জিল্লুর রহমান জুয়েল/গালিব/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ