রুমায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকটে শিক্ষার্থীদের পাঠদানে ব্যাহত

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৪:৩৬

শিক্ষা ক্ষেত্রে দেশের পিছিয়ে পড়া এলাকাগুলোর অন্যতম একটি প্রত্যন্ত রুমা উপজেলা। র্দীঘদিন যাবত শিক্ষক সংকটে, বাচার দেউ পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদানে ক্ষেত্রে নানানভাবে সমস্যা সম্মুখীনের মধ্যে রয়েছে। এতে শিক্ষার্থীদের শিক্ষার মান কমে যাচ্ছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এমন বেহাল অবস্থায় রুমার প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থায় দেখা দিয়েছে চরম দুর্দশা। শিক্ষার গুণগতমান বজায় রাখা বা উন্নয়নের সাথে সংশ্লিষ্ট নিয়মিত কাজগুলো স্থবির হয়ে পড়েছে। এতে অবনতি ঘটছে শিক্ষার গুণগত মানের পিছিয়ে পড়ছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। 

রুমার প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থার সার্বিক মান উন্নয়ন দিকে এগোলেও শিক্ষক সংকটে রয়েছে এমন অনেক দুর্গম পাহাড়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে। বছরের পর বছর বান্দরবান জেলা পরিষদ থেকে শিক্ষক নিয়োগ প্রাপ্ত সহকারী শিক্ষক পদে পর্যাপ্ত পরিমাণে শিক্ষক থাকলেও অনেক বছর ধরে বাচার দেউ পাড়া সর:প্রা:বিদ্যালয়ে জন্য কোন শিক্ষক পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়নি প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগ। প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে একটি উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থাকে সুসংহত রাখার কাজে প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকতার ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। অভিভাবক এবং সচেতন মহলের প্রাণের দাবি জনবল সংকট দ্রুত নিরসনের মাধ্যমে রুমা উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থাকে পুনরুদ্দীপ্ত করে শিক্ষার্থীদের পিছিয়ে পড়া প্রতিহত করা হোক। 

রুমা শিক্ষা বিভাগের কর্মকর্তা, অঞ্জন চক্রবর্তী সাথে এ বিষয়ে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান বাচার দেউ পাড়া সর:প্রা:বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকটের বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যনের (উহ্লাচিং মারমা) সাথে কথা বলে সঠিক তদন্তের মাধ্যমে শিক্ষক প্রেরণ করা হবে।

কর্মরত প্রধান শিক্ষিকা মামাচিং মারমা বলেন বিদ্যালয়ে শ্রেণী শিক্ষকের সংকটে কারণে শিক্ষার্থীদের পাঠদানে বিভিন্নভাবে সমস্যা সম্মুখীন হতে হয়েছে। এ বিদ্যালয়টি প্রথম শ্রেণী হতে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত পাঠদানের চালু করা হলেও অনেক বছর ধরে শিক্ষক না দেওয়া প্রধান শিক্ষক মামাচিং মারমা ও সহকারী শিক্ষক টিংশৈনু মারমা বিদ্যালয়টিকে শিক্ষার মান বাড়ানো জন্য অব্যাহত রাখা হলে ও তাদের পক্ষে সকল কার্যক্রম চালু করা খুবই কষ্টকর হয়ে পড়েছে। যেখানে ছাত্র-ছাত্রী রয়েছে ৫৬ জন, শিক্ষক রয়েছে দুজন ও দপ্তরী কাম প্রহরী একজনকে নিয়ে সকল কার্যক্রম করতে হয়। 

এ বিষয়ে গ্রামবাসীদের শিক্ষা বিভাগের প্রতি আবদার, এলাকার ও পাড়ার স্থানীয় গ্রামীণ অঞ্চলে শিক্ষার্থীদের শিক্ষার মান উন্নয়নের অগ্রগতি রাখার একমাত্র শিক্ষকের প্রতি দৃষ্টি আর্কষণ। শিক্ষক পর্যাপ্ত পরিমাণে থাকলে শিক্ষার্থীদের উন্নয়ন হবে, আর এলাকার শিক্ষিত হার বাড়ালে রুমা উপজেলা উন্নয়ন হবে। এ টুকু এলাকার চেয়ারম্যান ও শিক্ষা বিভাগের কর্মকর্তা প্রতির বাচার দেউ পাড়া সর:প্রা:বিদ্যালয়ে অভিভাবক হিসেবে আকুল আবদার।

এবিএন/চনুমং মারমা/গালিব/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ