কাউখালীতে শিক্ষকের বেত্রাঘাতে ছাত্র আহত

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:০০

পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলা সরকারী বালক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্র ইয়াছিন হাওলাদার সম্রাটকে বেত দিয়ে পিটিয়ে আহত করেছে অত্র বিদ্যালয়ের ইংরেজী শিক্ষক আব্দুল জলিল। 

সম্রাট উপজেলার মুক্তারকাঠী গ্রামের প্রবাসী জহিরুল হকের ছেলে। গুরুতর আহত সম্রাটকে কাউখালী হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাসায় রাখা হয়েছে। 

সম্রাট ও তার পারিবাকির সূত্রে জানা গেছে গত শনিবার ৩১ আগষ্ট ক্লাস বিরতির পর জলিল স্যার দশম শ্রেণীর ইংরেজী ২য় পত্রের ক্লাস নিতে যায়। তিনি ক্লাসে গিয়ে ছাত্রদেরকে পড়া লিখতে দেন। এ সময় সম্রাট লেখা শুরু করলে কিছু সময় পরে তার কলমের কালি শেষ হয়ে যায় এ সময় সম্রাট ক্লাসে চুপ করে বসে থাকে। পরে শিক্ষক পড়া না লেখার কারণ জানতে চাইলে সে বলে তার কলমের কালি শেষ হয়ে গিয়েছে। এই কথা শুনে শিক্ষক ক্ষিপ্ত হয়ে বেত দিয়ে তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ৬০ থেকে ৭০টি আঘাত করে। 

পরে স্কুল ছুটি হলে বাড়িতে গিয়ে তার পরিবারকে বিষয়টি জানালে সম্রাটের মা স্কুলের প্রধান শিক্ষকের কাছে অভিযোগ দেন। 

অভিযুক্ত শিক্ষক আব্দুল জলিল বলেন সম্রাট ক্লাসের পড়া না লেখায় তাকে ৩ / ৪টি হালকা বেত দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। 

এ বিষয়ে বালক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বাবর তালুকদার বলেন বিষয়টি ছাত্রের মায়ের কাছ থেকে শুনেছি। আগামী সোমবার স্কুল খুললে বিষয়টি নিয়ে উভয় পক্ষের কথা শুনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

কাউখালী হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. ফাহাদ হোসেন বলেন সম্রাটের শরীরের অনেকগুলো বেত্রাঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে। যার অধিকাংশই খুব জোড়ালো হওয়ায় শরীরে কেটে গিয়ে রক্ত জমাট ধরেছে।

এবিএন/সৈয়দ বশির আহম্মেদ/গালিব/জসিম
 

এই বিভাগের আরো সংবাদ