বেড়ায় অবৈধ বালু উত্তোলন করায় অর্থ ও কারাদন্ড

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৭ আগস্ট ২০১৯, ১৯:২৯

অবৈধভাবে যমুনা নদী থেকে বালু উত্তোলন ও রাস্তায় বালু ফেলার পাইপ ফেলে মানুষের চলাচলের বিঘœ সৃষ্টি করায় পাঁচ জন শ্রমিককে জেল জরিমানা করা হয়। বালু খেকোরা নাগালের বাইরে রয়ে যায়।

পাবনার বেড়া উপজেলার হাটুরিয়া নাকালিয়া ইউনিয়নের মালদহ পাড়ায় সোমবার (২৬আগষ্ট) বিকাল ৫টার দিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আসিফ আনাম সিদ্দিকী অবৈধভাবে বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, উপজেলার হাটুরিয়া-নাকালিয়া ইউনিয়নের একটি প্রভাবশালী মহল অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের জন্য মালদাহ পাড়া পুরান বাধের উপর বালু বহনের পাইপ রেখে জনসাধারনের চলাচলের প্রতিতবন্ধকতা সৃষ্টি করছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে দুই জনকে আটক করা হয়।

এছাড়াও যমুনা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে আরো তিন জনকে আটক করা হয়। এ সময় বালু উত্তোলনের দুইটি ড্রেজার জব্দ করা হয়। আটককৃতরা হলেন হাচেন আলী (৫০), জয়নাল শেখ (৫২), রাকিব হোসেন (২০), আনিস আলী (২২), বজলুর রহমান (৫১)।

ঐ দিন রাত সাড়ে নয়টার দিকে উপজেলা পরিষদে বালু উত্তোলনের দায়ে তিন জনকে ৫০ হাজার টাকা করে এক লক্ষ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও দুইজনকে বালুর পাইপ ফেলে যাতায়াতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করার দায়ে ৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন।

এ সময় হাচেন আলী ও আনিস স্ব স্ব জরিমানার টাকা পরিশোধ করে মুক্তি পান। অন্য তিন জনকে জরিমানার টাকা পরিশোধ না করায় আজ মঙ্গলবার পাবনা জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

এ ব্যাপারে ইউএনও আসিফ আনাম সিদ্দিকী বলেন, মালদাহ পাড়ার রাস্তায় পাইপ ২৪ ঘন্টার মধ্যে সরিয়ে ফেলার নির্দেশ দিয়েছি। ভবিষ্যতেও এ ধরনের অবৈধ কর্মকান্ডের সাথে জড়িতের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।
 

এবিএন/নির্মল সরকার/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ