বান্দরবানে শিশুকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ড্রাইভার কারাগারে

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৩ আগস্ট ২০১৯, ১১:৪৫

বান্দরবান শহরের পৌর এলাকার ৯ নম্বর ওয়ার্ডে চার বছরের এক কন্যা শিশুকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে মো. জহিরুল ইসলাম নামে বান্দারবান চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের এক গাড়ি চালককে গ্রেফতার করা হয়েছে। 

গতকাল বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) বিকাল সাড়ে তিনটায় আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত (২০ আগস্ট) বান্দরবান শহরের পৌরসভার ৯ নাম্বার ওয়ার্ডের বনানী সমিল এলাকার বাসিন্দা বান্দরবান বাজারের মুদি দোকানদার আব্দুল শুক্কুরের ৪ বছরের কন্যাশিশু মুশফিকা আক্তারকে পাশ্ববর্তী মনু সওদাগরের ভাড়াটিয়া বান্দরবান চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের গাড়ির ড্রাইভার জহিরুল ইসলাম বাড়ির ছাদে নিয়ে যৌন নির্যাতন করে। 

এ সময় শিশুটি কান্না করলে সে তাকে ছেড়ে দিয়। পরে শিশুটি বাসায় গিয়ে কান্না করে তার মাকে বিষয়টি খুলে বলে। এ ঘটনা শোনে তার মা প্রতিবেশী জহিরের স্ত্রীকে বিচার দিলে তার স্ত্রী শিশুটির মাকে উল্টো গালিগালাজ করে। 

পরে শিশুটির পিতা বাসায় আসলে শিশুটির পিতা কে তার মা ঘটনাটি খুলে বলে। ঘটনার পর শিশুটির পিতা শুক্কুর বাদী হয়ে গত বুধবার রাতে জহিরুলকে আসামি করে বান্দরবান সদর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। মামলার পর রাতেই পুলিশ জহিরুলকে গ্রেফতার করে বান্দরবান সদর থানা পুলিশ।

এ বিষয়ে বান্দরবান সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শহিদুল ইসলাম দৈনিক অধিকারকে বলেন ৪ বছরের এক ছোট কন্যা শিশুকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের গাড়ি চালক জহিরুলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। 

পরে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে তিনটায় তাকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের মামলায় আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

এবিএন/মোহাম্মদ আব্দুর রহিম/গালিব/গালিব/জসিম
 

এই বিভাগের আরো সংবাদ