বাউফলে হাটবাজারে বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ পিনারহা মাছ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২১ আগস্ট ২০১৯, ১৭:৪৫

পটুয়াখালীর বাউফলের বিভিন্ন হাটবাজারে বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ পিনারহা মাছ। সরকারের নিষেধাজ্ঞা উপক্ষো করে রাক্ষুষে এ মাছটি উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজারে প্রকাশ্যে বিক্রি হলেও উপজেলা মৎস কর্মকর্তা বিষয়টি জানেনা।

অভিযোগে রয়েছে, উপজেলা মৎস অফিস থেকে নিয়মিত মনিটিরিং না থাকার কারণেই কিছু অসাধু মাছ বিক্রেতেরা নিষিদ্ধ মাছটি বিক্রি করছেন।

সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, পিনারহা নামের এ ভিন দেশি মাছটি অনেক আগেই আমাদের দেশে এসেছে। মাছটি আমাদের দেশীয় মাছ ও অন্যান্য জলজ জীবকুলের জন্য বিপদজনক, এটি জলজ পরিবেশের সবকিছু খেয়ে উজাড় করে দিতে সক্ষম। তাই সরকার এ মাছটির প্রজনন, চাষ, ক্রয়, বিক্রয় নিষিদ্ধ করেছেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার কালাইয়া বন্দরে মাছের বাজারে, ঢালা পেতে প্রকাশ্যে বিক্রি করা হচ্ছে নিষিদ্ধ পিনারহা মাছ। ব্যবসায়ীরা ক্রেতাদের চাইনিজ রুপচাঁদা বলে দের থেকে দুইশ’ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছেন। দেখতে আকর্শনীয় ও দামে সস্তা হওয়ায় ক্রেতারা মাছটি কিনে নিচ্ছেন।

 কাশেম নামের এক মাছ বিক্রেতাকে পিনারহা মাছ কোথায় পেয়েছেন, এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, বাউফল থেকে কিনেছি। তবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে বাজারের এক ব্যবসায়ী জানান, স্বপন নামের একমাছ ব্যবসায়ী ঢাকা বরিশাল থেকে মাছটি কিনে এনে বাউফলের হাটবাজরে পাইকারী দরে বিক্রি করেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলার বাউফল পৌরশহরের বাজারসহ প্রায় সকল বাজারেই বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ পিনারহা মাছটি।

মাছ চাষি সাইফুল ইসলাম রিপন বলেন, “এটা দেশের মৎস ভান্ডারের জন্য সু:সংবাদ। আমি আশা করব দ্রুত সময়ের মধ্যে সংশ্লিষ্টগণ এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিবেন।

উপজেলা মৎস অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ জসিম উদ্দিন মনিটরিংয়ের অভিযোগ অস্বিকার করে বলেন, “আমারা এ বিষয়ে সচেষ্ট, এদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে”।

জেলা মৎস কর্মকর্তা মোল্লা ইমদাদ উল্লাহ্ বলেন, “আমি নিজে এর বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্ট করব। আর উপজেলার মৎস কর্মকর্তাকে বলে দিচ্ছি সে যেন ব্যবস্থা নেয়”।


এবিএন/দেলোয়ার হোসেন/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ