জগন্নাথপুরে স্থায়ী জন্ম নিয়ন্ত্রন পদ্ধতি গ্রহনকারীরা কাঙ্খিত সেবা থেকে বঞ্চিত

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৯ আগস্ট ২০১৯, ১৭:৪১

সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি অত্র উপজেলার জনসাধারনের স্বাস্থ্য সেবার একমাত্র ভরসা। বর্তমান সরকার জন্ম নিয়ন্ত্রন পদ্ধতি গ্রহনের জন্য নানা ভাবে উৎসাহিত করলেও নিম্ন মানের সেবার কারনে জগন্নাথপুরে এ পদ্ধতি গ্রহনে নিরুৎসাহী হচ্ছেন অনেকে।

সরেজমিনে গতকাল রবিবার (১৮ আগস্ট) জগন্নাথপুর হাসপাতালে গেলে দেখা যায় উপজেলার মীরপুর ইউনিয়নের পাথারিয়া গ্রামের মনসুর আলীর স্ত্রী জ্যেৎস্না বেগম (৩৩) ও কলকলিয়া ইউনিয়নের সাদীপুর গ্রামের আব্দুস ছত্তারের স্ত্রী শিবলী বেগম (৩৮) স্থায়ী জন্ম নিয়ন্ত্রন পদ্ধতি গ্রহন করেন।  অপরারেশন করার পর হাসপাতালের মেঝেতে শুয়ে রাখেন হাসপাতালে কর্তব্যরতরা।

এব্যাপারে ওই দিন কর্মরত নার্সদের সাথে কথা বলে জানাযায় জন্ম নিয়ন্ত্রনের অপারেশনের পর বালিশ ছাড়া রোগীকে মেঝেতে রাখতে হয়। আপনারা যেভাবে রাখছেন স্বাস্থ্য সম্মত কি না এমন প্রশ্নের জবাবে বলেন নার্স ইনচার্জ বলতে পারেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা কার্যালয়ের অফিস সহকারী নির্মল চন্দ্র দাস জানান, জন্ম নিয়ন্ত্রন স্থায়ী পদ্ধতি গ্রহনকারী রোগীদের জন্য স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্ের ৬টি  সিট বরাদ্ধ রয়েছে। কিন্তু এসব সিট রোগীদের দেয়া হয়না। আমরা রোগীদের সিট  দেওয়ার কথা বললে কর্তব্যরত নার্সরা জানান, এদের জন্য কোন সিট বরাদ্ধ নেই।

হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা অনেকেই জানান, অপারেশনের পর এ ধরনের অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে মেঝেতে রেখে চিকিৎসা দেয়া অমানবিক। এবিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করছেন ভোক্তভোগী জনসাধারন।
 

এবিএন/রিয়াজ রহমান/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ