বদলগাছীতে ধর্ষণ চেষ্টা মামলায় আটক ১

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৮ আগস্ট ২০১৯, ১৪:০২

নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার মিঠাপুর গ্রামের এক গৃহবধূকে ধর্ষণ চেষ্টা করায় থানায় নারী-শিশু নির্যাতন দমন আইনে ১১ জনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করে। 

মামলা সূত্রে জানা যায় গত ২৭ জুন রাত ৯ঘটিকায় ইসমাইলপুর গ্রামের ফিরোজ হোসেন এর স্ত্রী রুমা আকতার তার শয়নঘরে ঘুমিয়ে পড়ে। একই গ্রামের দুই ব্যক্তি তার শয়নঘরের কাঠের জানালা ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করার চেষ্টাসহ যৌন নিপীড়ন করে। তার আর্ত চিৎকারে পার্শ্ববর্তী বাড়ির ৪ জন ব্যক্তি এসে টর্চলাইটের আলোতে তাদেরকে চেনে ফেলে এবং আটক করে। আটককৃতদের ছিনিয়ে নেওয়ার জন্য তাদের লোকজন ঘরে প্রবেশ করে তার শরীরে আঘাত করে। 

এ সময় একটি ওয়ালটন ফ্রিজ মূল্য ৩০ হাজার টাকা, সিঙ্গার টিভি মূল্য ২৮ হাজার টাকা, নগদ ৫১ হাজার টাকা ও ৩ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার মূল্য ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা চুরি করে নিয়ে যায় এবং তাদের অন্যান্য লোকজন তার বাড়িতে অবরূদ্ধ করে রাখে। 

খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে রুমা আকতারকে উদ্ধার করে মিঠাপুরে বাবার বাড়িতে রেখে আসে। এ ব্যাপারে রুমা আকতার বাদী হয়ে থানায় নারী-শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করে। মামলা নং-৩৫, তাং ২৯/০৭/১৯। আসামিরা হলো মো. বেলায়েত হোসেন, পিতা রমজান আলী, মো. ইলিয়াস হোসেন, পিতা মৃত হছির উদ্দীন মন্ডল, নাহিদ সরদার পিতা শহিদুল সরদার, বিপ্লব সরদার, পিতা ইউনুছ সরদার, মো. ইউনুছ সরদার, পিতা মৃত সোনার সরদার, মো. জয় পিতা ইলিয়াস সরদার, মো. আরাফাত পিতা মো. হাসান সরদার, মো. জাহিদুল সরদার পিতা আফজাল সরদার, মো. আরিফ পতা মো. আলতাফ, মোছা. নাজনীন আকতার (লীলা), স্বামী দোলন, মোছা. জলি বিবি স্বামী ইলিয়াস সরদার সর্ব সাং ইসমাইলপুর। 

তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মো. আব্দুর রহমান বলেন মামলটি সহকারী পুলিশ সুপার আবু সালে মো. আশাফুল আলম ঘটনা স্থল পরিদশন করেছে এবং মামলার ৩নং আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে অন্যান্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা করা হচ্ছে। 

বদলগাছী থানার ওসি জালাল উদ্দীন বলেন মামলাটি স্বাক্ষীদের জবাববন্দি নেওয়া হচ্ছে পরে তদন্ত রিপোট কোটে প্রেরণ করা হবে।

এবিএন/হাফিজার রহমান/গালিব/জসিম 


 

এই বিভাগের আরো সংবাদ