পীরগঞ্জে ছাত্রীর শ্লীলতাহানির চেষ্টায় মামলা দায়ের

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৭ আগস্ট ২০১৯, ১৯:৪৮

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে কোরআন শিক্ষা গ্রহনকারী এক ছাত্রীর (১২) শ্লীলতাহানির চেষ্টার অভিযোগে মোকসেদ আলী (৫০) নামে এক মোয়াজ্জিনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। আজ শনিবার বিকালে ঐ ছাত্রীর পিতা বাদী এ মামলা দায়ের করেন। মোকসেদ আলী উপজেলার একান্নপুর গ্রামের মৃত পশির উদ্দিনের ছেলে এবং মালগাও পোকুয়ানটলি জামে মসজিদের মোয়াজ্জিন।

হাজীরপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান জানান, মালগাও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর এক ছাত্রী আজ শনিবার সকাল ৭টার দিকে উপজেলার মালগাঁও তালেমুল কুরআন মাদ্রাসায় কোরআন শরিফ শিক্ষা গ্রহন করার জন্য যায়। মাদ্রাসা বন্ধ থাকায়  মোয়াজ্জিন মোকসেদ আলীর কাছ থেকে চাবি নিয়ে মাদ্রসা ঘড়ের দরজা খুলে ভিতরে প্রবেশ করার সময় ঐ মোয়াজ্জিন ছাত্রিটিকে পেছন থেকে জাপটে ধরে শ্লীলতা হানির চেষ্টা করে। এ সময় ঐ ছাত্রীর চিৎকার করলে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে তাকে রক্ষা করে। লোকজন দেখে ঘটনাস্থল থেকে দৌড়ে পালিয়ে যান মোকসেদ।

স্থানীয়রা জানায়, ঐ মাদ্রাসার সুপার দেলোয়ার হোসেন প্রতিদিন সকালে মাদ্রাসা ঘড়ে স্থানীয় ছেলে মেয়েদের কোরআন সহ আরবি শিক্ষা দান করেন। সেখানে কোরআন শিক্ষা গ্রহন করছিল ঐ কিশোরী। অসুস্থ্যতার কারণে কয়েক দিন ধরে মাদ্রাসায় না আসার কারণে মাদ্রাসা বন্ধের খবর জানত না সে।

সকালে এসে মাদ্রাসা বন্ধ দেখে মোয়াজ্জিন মকসেদের কাছে থাকা মাদ্রাসার চাবি নিয়ে ঘড় খুলতে গেলে এ ঘটনা ঘটে। তারা আরো জানান, মকসেদ আলী মাদ্রাসার পাশের মসজিদে আযান দেওয়ার পাশাপশি সেখানে চায়ের দোকান করেন। মাদ্রাসা ঘড়ের একটি চাবি তার কাছে জমা রাখা হয়। বিষয়টি শিক্ষার্থীরা জানতো আর এটারই সুযোগ নিয়েছেন মকসেদ।

পীরগঞ্জ থানার ওসি বজলুর রশিদ জানান, ওই ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মকসেদকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।
 

এবিএন/বিষ্ণুপদ রায়/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ