আনোয়ারায় গার্মেন্টস শ্রমিককে গণধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার ২

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৬ জুলাই ২০১৯, ১৬:০৫

গার্মেন্টস থেকে বাড়ি ফেরার পথে চট্টগ্রামের আনোয়ারায় চার দুর্বৃত্তের হাতে এক এক কিশোরী গার্মেন্টস শ্রমিক গণধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত চার ধর্ষককের দুজনকে গ্রেফতার করেছে আনোয়ারা থানা পুলিশ। শুক্রবার রাতে আনোয়ারা উপজেলার চাতরি চৌমুহনী এলাকা থেকে দুজনকে গ্রেফতার করার তথ্য নিশ্চিত করেছে আনোয়ারা থানার ওসি দুলাল মাহমুদ।

গ্রেফতার দু’জন হলেন আনোয়ারা উপজেলার বাসিন্দা সিএনজি অটোরিকশা চালক মামুন (২০) এবং পটিয়া উপজেলার বাসিন্দা হেলাল উদ্দিন (৩০)। ওসি দুলাল মাহমুদ বলেন, গ্রেফতারের পর তাদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক ধর্ষণের ঘটনার ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করা হয় এবং এ ঘটনায় জড়িত বাকি দুজনের মধ্যে একজনের পরিচয় জানা গেছে।

তিনি বলেন, অপর আসামিকে শনাক্ত করতে এবং শনাক্ত হওয়া আসামিকে গ্রেফতারে তাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
এর আগে গত বুধবার রাতে আনোয়ারা ইপিজেডের একটি জুতা কারখানায় কাজ শেষে নিজ বাড়ী চন্দনাইশে ফেরার পথে ওই কিশোরীকে নির্জন জঙ্গলে নিয়ে গিয়ে দুর্বৃত্তরা গণধর্ষণ করে।

পুলিশ জানায় ফ্যাক্টরি থেকে বেরিয়ে বাড়ি ফেরার সময় আনোয়ারা চাতরি চৌমুহনী এলাকায় এসে একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় ওঠে কিশোরী। ওই অটোরিকশায় চালক ছাড়া আরও দুইজন ছিল। তারাই ওই তাকে কালার মার দিঘী সংলগ্ন চায়না রোডে নিয়ে যায়। এলাকাটি নির্জন,সেখানেই তাকে ধর্ষণ করে রাস্তার পাশে ফেলে যায়। রাত ৮টার পর স্থানীয়রা কিশোরীকে উদ্ধার করে অজ্ঞান অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৫টায় ধর্ষিতা কিশোরীর বড়ভাই বাদী হয়ে চারজনকে অভিযুক্ত করে আনোয়ারা থানায় মামলাটি দায়ের করেন। নির্যাতিত কিশোরী কোরিয়ান ইপিজেডের কর্ণফুলী সু ফ্যাক্টরিতে কাজ করেন। চন্দনাইশের বাড়ি থেকেই তিনি প্রতিদিন কর্মস্থলে আসা-যাওয়া করেন।
 

এবিএন/রাজীব সেন প্রিন্স/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ