বন্দরে স্ত্রীর সামনে রং মিস্ত্রীকে কুপিয়ে জখম

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৮ জুন ২০১৯, ১৯:১০

বন্দরের বক্তারকান্দিতে সন্ত্রাসীরা স্ত্রীর সামনে শাহীন (৪২) নামে এক রং মিস্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে। এলাকাবাসীর সহায়তায় প্রাণে বেঁচে যায় রং মিস্ত্রী শাহীন। আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় এ ঘটনা ঘটে। সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও সন্ত্রাসী বন্টু আমজাদের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ২টি এসএস পাইপ উদ্ধার করে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নাসিক ২৪ নং ওয়ার্ডের বন্দরের বক্তারকান্দি এলাকার মৃত লাল চাঁন মিয়ার ছেলে পুলিশের তালিকাভ’ক্ত সন্ত্রাসী বল্টু আমজাদ, তার ছেলে আপন, হৃদয় ও ভাগিনা শফিক মিলে একই এলাকার গিয়াস উদ্দিনের ছেলে রং মিস্ত্রী শাহীনকে রাস্তায় একা পেয়ে গালিগালাজ শুরু করে।

এ সময় সংবাদ পেয়ে শাহীনের স্ত্রী স্বামীকে সন্ত্রাসীর কবল থেকে ফিরিয়ে নিতে রাস্তায় চলে আসে। সন্ত্রাসী আমজাদ ও তার ছেলেরা শাহীনের স্ত্রীর সামনেই ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। ঘটনাস্থলে থাকা এলাকাবাসী সন্ত্রাসীদের বাধা দেয় এবং শাহীনকে উদ্ধার করে দ্রুত নারায়ণগঞ্জ ৩শ’ শয্যা হাসপাতালে পাঠায়।

সংবাদ পেয়ে বন্দর থানা দারোগা মোহাম্মদ আলী ঘটনাস্থলে আসেন এবং সন্ত্রাসী বল্টু আমজাদের বইয়ের দোকান থেকে ২টি এসএস পাইপ উদ্ধার করে। পুলিশ আসার সংবাদ পেয়ে সন্ত্রাসী বল্টু আমজাদ ও তার ছেলেরা ছটকে পড়ে। পুলিশ আসার আগ পর্যন্ত নস্ত্রাসী আমজাদ ও তার ছেলে বিভিন্ন অস্ত্র নিয়ে এলাকায় মহড়া দিতে থাকে যাতে ভয়ে কেউ তাদের বিরুদ্ধে মুখ না খুলে। এ ঘটনার পর থেকে এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

 এলাকাবাসী জনান, সন্ত্রাসী বল্টু আমজাদ রং মিস্ত্রী শাহীনের বিয়েতে উকিল হয়। এর সূত্র ধরে সে উকিল মেয়ে ববির বাসায় আসা যাওয়া করত। এক পর্যায়ে উকিল মেয়ে তার কুনজরে পড়ে সে তার উকিল মেয়ে রং মিস্ত্রী শহীনের স্ত্রী ববিকে জোর পূবর্ক ধর্ষণ করে।

এ ধর্ষণের ঘটনায় সন্ত্রাসী বল্টু আমজাদের বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন মামলা হয়। এ মামলায় সে কয়েক দিন জেল খাটে। এর জেল ধরে সে ও তার ছেলেরা গতকাল শুক্রবার রং মিস্ত্রী শাহীনকে তার স্ত্রীর সামনে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। এ ব্যপারে বন্দর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, সন্ত্রাসী আমজাদসহ তার ছেলের বিরুদ্ধে মামলা নেয়া হয়েছে এবং আসামীদের ধরতে পুলিশ মাঠে নেমে পড়েছে।
 

এবিএন/নাসির/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ