তিতাসে আওয়ামী লীগের কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে প্রতিবাদ সভা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৬ জুন ২০১৯, ১৯:০৬

কুমিল্লার তিতাস উপজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়নের নয়াকান্দি গ্রামে আওয়ামী লীগের কর্মী সমর্থকদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে প্রতিবাদ সভা ও ভিক্ষোভ মিছিল করেছে ওই গ্রামের শতাধিক নারী পুরুষ।

আজ রবিবার বেলা ১২টায় ওই গ্রামের ফায়জুল ও আমির হোসেনের বাড়ির উঠানে এই প্রতিবাদ সভা ও ভিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় আবদি মেম্বারের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন আমির হোসেন, ফজলু মেম্বার,নাজমা বেগম, তাসলিমা, আব্দুস ছাত্তার ও আমিনা খাতুন।

বক্তারা বলেন গত সোমবার সন্ধায় মালেশিয়া প্রবাসী শামীম(৩২) তার নিজ বাড়ি থেকে স্থানীয় নয়াকান্দি বাজারে যাওয়ার পথে বিএনপি নেতা রমজান ডাকাত ও তার ভাই শিপন,বাতিজা,সাদ্দাম,ওসমান সহ ২০/২৫ জনের একটি সংগ বদ্ধ দল রমজানের বাড়ির সামনে শামীমকে একা পেয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে এলোপতারী কুপিয়ে মেরুদন্ড ও ডান পা ক্ষত বিক্ষত করে।

এঘটনায় শামীমের বড় ভাই বাদী হয়ে তিতাস থানায় মামলা করলে,রমজান কোর্টে আত্মসমর্পণ করলে কোর্ট তার জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করে। তারই জেরে রমজান গ্রুপের লোকজন তাদের মালামাল ,গরু,ছাগল ও ঘরের আসবাপ পত্র ভাংচুর করে আবদি মেম্বার গংদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করছে দাবী করে এবং অবিলম্বে এই মিথ্যা মামলা প্রতাহারের জন্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি দাবী জানান আসমী পক্ষ।

আহত শামীমের মা আমিনা খাতুন(৯০) কেদে কেদে বলেন আমার ৯ পুত  শামীম  ছোট পুত আমার আধরের পুতটারা মাইরালাইছে রমজাইনা চোরারা  আমি বিচার চাই।উল্লোখ্য  দুই পক্ষের মধ্যে  আধিপত্য বিস্তার ও টাকা এবং স্বর্ন ছিনতাইকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনায় আওয়ামীলীগ নেতা আবদি মেম্বারের,শান্তি মিয়া ও তাজুল ইসলামের লোকজনদের ফাঁসাতে,বিএনপি নেতা রমজান গ্রুপের লোকজন তাদের আসভাবপত্র ভাংচুর করে এবং ঘরের মালামালসহ গরু,ছাগল সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছে শুক্রবার সন্ধায় ওই গ্রামের বাদল মিয়ার স্ত্রী হাওয়া বেগম তার ঘরে থাকা ফ্রীজ ভাংচুর করে এবং ১৫ বস্তা চাউল সিএনজি চালিত অটোরিক্সা যোগে নিয়ে যাওয়ার সময় এলাকাবাসী আটক করে তিতাস থানা পুলিশকে খবর দেয়।

পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে গেলে গ্রামের শত শত নারী এগিয়ে এসে পুলিশকে  জানায় উপজেলা বিএনপি নেতা  রমজানের লোকজন তাদের ঘরের আসভাবপত্র ভাংচুর করে এবং গরু,ছাগল ও মালামাল সরিয়ে নিয়ে আবদি মেম্বারের লোকজনের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়েছে এবং আরো মামলা দেওয়ার জন্য পরিকল্পিত ভাবে এগুলো করছে।  এর আগেও জাকির হোসেনের স্ত্রী জাহানারা একটি গরু বিক্রি করে অভিযোগ তুলে তার গরু লুট করে নিয়ে গেছে। পরে গরুটি পুলিশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসলে জাহানারা গরুটি বিক্রি করেেছ বলে স্বীকার করে গরুটি  থানা থেকে নিয়ে আসে।
 

এবিএন/কবির হোসেন/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ