চট্টগ্রামে অটোরিকসার নামে চলছে টোকেন বাণিজ্য

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৩ জুন ২০১৯, ১০:৫১

চট্টগ্রাম মহানগরীতে প্রশাসনের চোখের আড়ালে ৪১টি ওয়ার্ডে চলছে নিষিদ্ধ ব্যটারী চালিত অবৈধ অটোরিকসার টোকেন বাণিজ্য প্রকাশ্যে। 

অনুসন্দানে তথ্য সূত্রে জানা যায় আওয়ামী লীগের কথিপয় নাম ধারী কিছু পাতি নেতা এই ব্যবসার সাথে জরিত। এক অটোরিকসা চালকের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান ৩০ দিনের জন্য ১টি টোকেন কিনতে হয় ১২০০ টাকায়। আর এই টোকেন না কিনে রাস্তায় বের হলে বিভিন্ন সন্তাসি বাহিনী দিয়ে তাদের রিকসা তুলে নিয়ে যাওয়া হয় এবং ১৫০০ থেকে ২০০০ টাকা জরিমানা দিয়ে রিকসা ছাড়িয়ে আনতে হয় বলে জানান।

আর এর সাথে যুক্ত প্রশাসনের কিছু অসাধু কর্মকর্তারা। তারা মাসোহারা নিয়ে টোকেন বাণিজ্য করা সুযোগ করে দেয় বলে অভিযোগ করেন শত শত রিকসা চালক।  অবৈধ ব্যাটারি চালিত অটোরিকসা ব্যাবসার সাথে  জডিত রয়েছে মহিবুল্লাহ ১৯নং ওয়ার্ড, মো. দেলোয়ার-১৭নং ওয়ার্ড, মুসা এম এ ১৭নং ওয়ার্ড, মামুন পূর্ব বাকলিয়া মহিউদ্দিন পুলিশ বলির হাট এই ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করে বলে জানা যায়।

প্রতি মাসে টোকেন বিক্রির লাভের একটা অংশ ভাগ যায় পুলিশের কাছে। চট্টগ্রাম মহানগরীতে দুটি ব্যবসা নিয়ে  সবসময় কোন্দল দেখা যায় ১/ ডীস ব্যবসা ২/ টোকেন ব্যবসা এই দুই ব্যবসা কে কেন্দ্র করে অনেক নেতাকর্মী খুন হয়।

কিছু অটো চালক দৈনিক জনতা ও ইনফো বাংলা প্রতিনিধিকে জানান জনতার সংগ্রাম পরিষদ নামে একটি সংগঠনের নাম দিয়ে এই টোকেন বাণিজ্য চালায় আসলেও প্রশাসন মাসহারা বিনিময়ে নিরব রয়েছে।   সরকারি অনুমতি নেই এমন একটি জনতার সংগ্রাম পরিষদ নাম দিয়ে ব্যাটারিচালিত অটোরিকসা থেকে  টোকেন বাণিজ্য ছালিয়ে য়াচ্চে। এতে করে সরকারে বিদ্যুৎ চুরি করে ব্যাটারিচালিত রিকসা চার্জ দেওয়া কোটি কোটি টাকা ক্ষতি করছে।  

সিএমপি পুলিশ ও চসিক মেয়র এর প্রযোজনীয় ব্যবস্তা গ্রহণ করে  অটোরিকসা  একেবারে বন্দ করে দেওয়া দাবি জানান স্থানীয় নগরীতে বসবাসকারীরা।

এবিএন/সেলিম চৌধুরী/গালিব/জসিম
 

এই বিভাগের আরো সংবাদ