রাজধানীর ৮৪ ভাগ বহুতল ভবন ত্রুটিপূর্ণ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৩ মে ২০১৯, ০৯:৫৩

রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) পরিদর্শন প্রতিবেদন বলছে, ঢাকার বহুতল ভবনগুলোর মধ্যে প্রায় ৮৪ ভাগই ত্রুটিপূর্ণ ও যথাযথ নিয়ম না মেনে নির্মাণ করা হয়েছে।

বুধবার (২২ মে) সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এই পরিদর্শন প্রতিবেদন তুলে ধরেন।

সম্প্রতি বনানীর এফআর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের পর ১ থেকে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত রাজউকের আটটি জোন থেকে ২৪টি টিম গঠন করে বহুতল ভবন (১১ তলার উপরে) পরীক্ষা করা হয়। এ সময় পরিদর্শক দল ঢাকায় ১ হাজার ৮১৮টি ভবন পরীক্ষা করে। এর মধ্যে মাত্র ২৯৩টি ভবন নিয়ম মেনে নির্মাণ করা হয়েছে বলে জানান গণপূর্তমন্ত্রী।

বাকি ১ হাজার ৫২৫টি বহুতল ভবনই নিয়মের ব্যত্যয় ঘটিতে নির্মাণ করা হয়েছে, যা পরিদর্শন করা ভবনের প্রায় ৮৪ শতাংশ। অনুমোদিত নকশা না থাকা, ঊর্ধ্বমুখী ব্যত্যয়, সেটব্যাক ও অন্যান্য ব্যত্যয়, আগুন নেভানোর ব্যবস্থা না থাকা, অগ্নি নির্গমন সিঁড়ি না থাকা ও ত্রুটিপূর্ণ সিঁড়ি থাকাসহ বিভিন্ন ধরনের ব্যত্যয় ও ত্রুটি পাওয়া গেছে এসব ভবনে।

মন্ত্রী বলেন, পরিদর্শন করা ১ হাজার ৮১৮ ভবনের মধ্যে ২৭৭টি ভবন ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণের ক্ষেত্রে রাজউকের অনুমোদন নেয়া হয়নি। ৬৭৪টি ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে নিয়মানুযায়ী উন্মুক্ত স্থান (সেটব্যাক) রাখা হয়নি। ১ হাজার ৮১৮টি ভবনের মধ্যে রাজউক ছাড়া সরকারের অন্যান্য সংস্থা থেকে অনুমোদিত ভবন রয়েছে ২০৭টি। এই ২০৭টির মধ্যেও ৩২টি ভবন ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ করা হয়েছে নিয়ম না মেনে। ৬৪টির ক্ষেত্রে নিয়ম মেনে উন্মুক্ত স্থান রাখা হয়নি।

রাজউকের ২৪ দলের তদন্তে সবচেয়ে বেশি অনিয়মের চিত্র উঠে এসেছে অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থায়।

গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, ১ হাজার ৮১৮টি বহুতল ভবনের মধ্যে ৪৩১টি ভবনের মালিক রাজউকের অনুমোদিত নকশা দেখাতে পারেননি। এ ছাড়া সরকারি সংস্থার অনুমোদিত ভবনের মধ্যে নকশা দেখাতে পারেনি ৪৪টি। যেসব ভবনের নকশা নেই সেসব ভবন মালিকদের সময় বেঁধে দেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ