চিতলমারীতে ছড়িয়ে পড়ছে ‘ছেলে ধরা রোহিঙ্গা’ আতঙ্ক

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৮ মে ২০১৯, ১৪:০৪

সারাদেশের মত বাগেরহাটের চিতলমারীতেও দেখা দিয়েছে ‘ছেলে ধরা-রোহিঙ্গা’ আতঙ্ক। ছদ্মবেশে দিনে অথবা রাতের আধারে রোহিঙ্গারা বাচ্চা অপহরণ করছে এমন গুজবে উপজেলার সর্বত্র আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। 

এরই মধ্যে গতকাল শুক্রবার (১৭ মে) সন্ধ্যার দিকে উপজেলার খলিশাখালী গ্রামবাসী রোহিঙ্গা সন্দেহে এক যুবককে আটক করে পুলিশের কাছে দিয়ে। এ ঘটনার পর উপজেলা ব্যাপী আতঙ্ক আরও বেশী ছড়িয়ে পড়েছে। তবে পুলিশ বলছে আটক যুবক রোহিঙ্গা নয়। এটা নিছক গুজব। 

খলিশাখালী গ্রামের গৃহবধূ কবিতা রানা জানান, গতকাল শুক্রবার (১৭ মে) বিকেলে তাদের গ্রামে অপরিচিত এক যুবক এলোমেলোভাবে চলাফেরা ও কথাবার্তা বলছিল। ওই যুবকে এলাকাবাসীর রোহিঙ্গা বলে সন্দেহ হলে তাকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। 

একই গ্রামের খোকন রানা বলেন, ওই যুবক ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের ধরার জন্য ধাওয়া করছিল। পরে বাচ্চাদের ডাক চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ছুটে আসে এবং ওই যুবককে চড়-থাপ্পড় দিয়ে পুলিশে দেয়। 

এ ব্যাপারে বোয়ালিয়া গ্রামের টিটব বিশ্বাস, কুরমনির রেজাউল দাড়িয়া, সুরশাইলের বাদশা ফরাজি, শুধাংশু মন্ডল, গরীবপুরের ভোলানাথ হালদার, শ্রীরামপুরের তাপস ভক্ত, আড়–য়াবর্নির ফায়জুল শেখ, খড়মখালীর পরিমল মজুমদার ও পাটরপাড়ার আকবর আলী শেখসহ অনেকে জানান, সারাদেশের মত চিতলমারীতেও দেখা দিয়েছে ‘ছেলে ধরা-রোহিঙ্গা’ আতঙ্ক। দিনে অথবা রাতের আধারে রোহিঙ্গারা বাচ্চা অপহরণ করছে এমন গুজব উপজেলার সর্বত্র আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। তারা তাদের ছোট্ট শিশুদের নিয়ে মহা দুঃচিন্তার মধ্যে আছেন। সারাক্ষণ উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা তাদের ঘিরে রেখেছে। 

তবে চিতলমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অনুকূল সরকার জানান, খলিশাখালী গ্রামে আটক যুবক রোহিঙ্গা নয়। এ ছাড়া ছেলে ধরা বা রোহিঙ্গা বিষয়ে যা প্রচার হচ্ছে তার সবই গুজব। তিনি সবাইকে গুজবে কান না দেওয়ার জন্য আহবান জানান। 

এবিএন/এস এস সাগর/গালিব/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ