সিরাজগঞ্জে ধর্ষণের শিকার প্রবাসীর স্ত্রীর সন্তান প্রসব

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১১ মে ২০১৯, ১৬:৪৬

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার রেশমবাড়ি গ্রামের গণধর্ষনের শিকার এক প্রবাসীর স্ত্রী ছেলে সন্তান জন্ম দিয়েছেন। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যর সৃষ্টি হয়েছে। জানা গেছে, উক্ত গ্রামের ইউনুস আলীর সঙ্গে একই এলাকার বাড়াবিল গ্রামের ওই নারীর ১০/১১ বছর আগে বিয়ে হয়।

 তার স্বামী জীবিকার প্রয়োজনে প্রায় আড়াই বছর হলো মালয়েশিয়ায় কর্মরত রয়েছেন। এ সুযোগে লিটন মিয়া (২৩), ইয়াছিন (২৫) ও স্বপন ফকির (২৫) নামে এ তিনযুবক ২০১৮ সালের শেষ দিকে ওই নারীকে ঘর থেকে নৌকায় তুলে যমুনা নদীতে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে আবার ওই রাতেই বাড়ি পৌঁছে দেয় তারা। এ সময় ঘটনা প্রকাশ না করার জন্য গৃহবধূকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয়।

এর মাঝেও ধর্ষকরা বিশেষ কৌশল অবলম্বন করে তাকে আরো একাধিকবার ধর্ষণ করা হয়। এক পর্যায়ে বিষয়টি জানাজানি হলে ওই নারী ও স্বামীর পরিবারের পক্ষ থেকে এঘটনায় ধর্ষকদের স্বজনদের কাছে বিচার চাইলেও তারা বিচার পায়নি।

অবশেষে বিয়ের দাবি নিয়ে ওই নারী প্রধান ধর্ষকের বাড়িতে কয়েকবার অবস্থানও করেছিলো। কিন্তু ধর্ষকরা প্রভাবশালী হওয়ায় তাকে মারধর করে বের করে দেয়া হয়।

এদিকে গণধর্ষণের শিকার নারী অন্তঃসত্ত্বা বিষয়টি ফাঁস হয়ে যায়। তিনি ৮ মে রাতে এক ছেলে সন্তানের জন্ম দেন। এখন তার সন্তানের পিতৃ পরিচয়ের দাবী করছেন এলাকায়। অনেকে বলছেন, ওই নারীর শিশু সন্তানটি নিষ্পাপ। তবে ওই ৩ ধর্ষকের সঙ্গে ডিএনএ টেস্ট করলে প্রকৃত বাবার পরিচয় পাওয়া যাবে।

 এ ব্যাপারে শাহজাদপুর থানার ওসি আতাউর রহমান বলেন, এমন ঘটনাটি শুনেছি। এ বিষয়ে অভিযোগ পাওয়া গেলে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।


এবিএন/এস.এম তফিজ উদ্দিন/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ