ফরিদপুরে র‌্যাব কর্তৃক বিকাশ প্রতারক চক্রের ৫ সদস্য গ্রেফতার

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২১ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:০৯

ফরিদপুর জেলার ভাংগা থেকে বিকাশ প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত বিপুল পরিমাণ মোবাইল সেট ও সীমকার্ড, ইয়াবা গাঁজা ও ফেন্সিডিলসহ বিকাশ প্রতারক চক্রের পাঁচ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৮ এর ফরিদপুর ক্যাম্পের সদস্যরা। 

গতকাল শনিবার দিবাগত গভীর রাতে ভাঙ্গা উপজেলার মিয়া পাড়া এলাকা থেকে তাদেরকে আটক করা হয়। 

এ সময় আটককৃত প্রতারক চক্রের নিকট হতে বিকাশ প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ৪৩টি মোবাইল সেট, ৫৭৮টি সীমকার্ড, ২টি রাউটার, ১৬৪ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ২ বোতল ফেন্সিডিল, ১৭৫ গ্রাম গাঁজা ও নগদ ৯০০টাকা উদ্ধার করা হয়। 

আটককৃত সকলের বাড়ি ভাঙ্গা থানার মিয়া পাড়া ও রায়নগরে। গ্রেফতার কৃতরা হলেন, মো. রুবেল ফরাজী, মো. উজ্জল ফরাজী, মো. ওবাইদুল শিকদার, মো. সুমন হাওলাদার, মো. বাবু মাতুব্বর।
ফরিদপুর র‌্যাব ক্যাম্পের কোম্পানী অধিনায়ক মেজর শেখ নাজমুল আরেফিন পরাগ জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার দিবাগত মধ্য রাতে জেলার ভাঙ্গা উপজেলা থেকে গ্রেফতার করা হয়। 

গ্রেফতারকৃতরা দীর্ঘদিন ধরে বিকাশ প্রতারণার মাধ্যমে জনসাধারণের নিকট হতে প্রতারণার মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে বলে স্বীকার করে। 

প্রতারক চক্রের সদস্যরা দুর্নীতিপরায়ণ ডিএসআর গণের নিকট থেকে অর্থের বিনিময়ে বিকাশ এ্যজেন্টদের লেনদেনের তথ্য সংগ্রহ করে ঐসব ভূয়া রেজিস্ট্রেশনকৃত মোবাইল সীমকার্ড ব্যবহার করে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের সহজ সরল সাধারণ জনগণের নিকট নিজেদেরকে বিকাশ হেড অফিসের কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে ফোন করে কৌশলে তাদের বিকাশ পিন কোড জেনে নেই এবং স্মার্ট ফোনে বিকাশ এ্যাপস্ ব্যবহার করে উক্ত সাধারণ লোকজনের বিকাশ এ্যাকাউন্ট হতে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেয়। 

গ্রেফতারকৃতরা বিকাশ প্রতারণার সাথে সাথে সংঘবদ্ধভাবে ফরিদপুর জেলার ভাংগা থানার বিভিন্ন এলাকায় মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয় করে থাকে। 
গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে ফরিদপুর জেলার ভাংগা থানায় সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা রুজুর প্রক্রিয়া চলমান আছে। 

এবিএন/কে এম রুবেল/গালিব/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ
well-food