পাটগ্রামে ব্রীজের অভাবে দুর্ভোগে ৪ গ্রামের মানুষ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০১ এপ্রিল ২০১৯, ২০:০৯

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার জোংরা ও কুচলিবাড়ী ইউনিয়নের সীমান্তে  লালস্কুল এলাকায় সিঙ্গিমারী নদীতে একটি ব্রীজের অভাবে প্রায় ১৫ হাজার মানুষকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। আজো নির্মিত হয়নি একটি ব্রীজ। ওই উপজেলার দহগ্রাম, পানবাড়ী, শমসেরপুর ও কুচলিবাড়ী গ্রামবাসীদের দীর্ঘদিনের দাবী এই নদীর উপর একটি ব্রীজ নির্মাণের। নির্বাচনের আগে প্রার্থীরা এসে ব্রীজ নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিলেও আজোও তা বাস্তবায়িত হয়নি। এখানে একটি ব্রীজ নির্মাণের দাবী ৪ গ্রামবাসীদের প্রাণের দাবীতে পরিণত হয়েছে।

সরেজমিন ওই এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, বুড়িমারী-ঢাকা মহা সড়কের পাশে একটি বাঁশের সাকো তৈরী করে ওই এলাকার লোকজন চলাচল করছে। ওই বাঁশের সাকো দিয়ে প্রতিদিন মমিনপুর উচ্চ বিদ্যালয় ও কুচলিবাড়ী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শত শত শিক্ষার্থীসহ দুই পাড়ের দহগ্রাম, পানবাড়ী, শমসেরপুর ও কুচলিবাড়ী গ্রামের ১৫ হাজার মানুষ চলাচল করছে। বন্যার সময় পানির চাপে বাঁশের সাকোটি ভেঙ্গে গেলে ওই এলাকার লোকজনদের চরম দুর্ভোগে পড়তে হয়।

মমিনপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী রুপালী খাতুন, অনামিকা আক্তার ও সাদেকুল ইসলাম জানান, বাঁশের সাকোটির বিভিন্ন স্থানে গত বন্যায় ভেঙ্গে গেছে। সাকোর খুটি গুলো নষ্ট হয়ে গেছে। ফলে বিপদ জনক অবস্থা আমাদের প্রতিদিন বিদ্যালয়ে চলাচল করতে হয়। আমরা এখানে একটি ব্রীজ চাই।

ওই এলাকার কৃষক জরিম উদ্দিন, আজিজুল ইসলাম ও মমিনুর রহমান জানান, কাজের প্রয়োজনে বিভিন্ন কৃষি পণ্য নিয়ে বাউরা, হাতীবান্ধা বা জেলা শহরে যেতে হলে আমাদের পাটগ্রাম উপজেলা শহর ঘুরে যেতে হয়। এতে পরিবহন ব্যয় বৃদ্ধি ও সময় নষ্ট হয়। সিঙ্গিমারী নদীতে লালস্কুলের পাড়ে একটি ব্রীজ নির্মাণ হলে আমাদের অর্থনৈতিক ও সামাজিকসহ জীবন যাত্রার মানের উন্নয়ন ঘটবে। আমরা দীর্ঘ দিন ধরে এ নদীতে একটি ব্রীজ নির্মাণের দাবী করে আসলেও কাজের কাজ হচ্ছে না।

 ভোটের সময় অনেক প্রার্থী এ এলাকায় এসে নির্বাচিত হলে ব্রীজ নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিলেও ভোটের পর তা ভুলে যায়। ফলে আমরা দুর্ভোগ থেকে মুক্তি পাচ্ছি না। ব্রীজ নিমার্ণের স্থানীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী মোতাহার হোসেনের নিকট আবেদন করা হয়েছে।

পাটগ্রাম উপজেলা প্রকৌশলী সামসুজ্জামান বলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা মোতাহার হোসেন একটি ডিও লেটার দিয়েছেন। ওই এলাকায় সিঙ্গিমারী নদীতে একটি ব্রীজ নিমার্ণের প্রস্তাবনা রয়েছে। আশা করছি শীঘ্রই আমরা ওই এলাকা একটি ব্রীজ নির্মাণ করতে পারবো।  
 

এবিএন/আসাদুজ্জামান সাজু/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ
well-food