ভূমিহীনদের ঘর জ্বালিয়ে দেয়ার ঘটনায় মামলা আটক ২

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৬ মার্চ ২০১৯, ১৭:৫০

নওগাঁর ধামইরহাটে ভূমিহীনদের বাড়ীঘর আগুনে পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েছে।  পুলিশ মধ্য রাতে অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে প্রধান আসামীসহ ২জনকে আটক করেছে।  নওগাঁর পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।  বর্তমানে ওই এলাকার সার্বিক পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

থানা সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার আলমপুর ইউনিয়নের অন্তগর্ত চৌঘাট কাগজকুটা গ্রামের পুকুর পাড়ে বিভিন্ন এলাকায় লোকজন নিজেদের ভূমিহীন দাবী করে ওই এলাকায় ৩৫টি টিনের ছাউনি ও বাঁশের বেড়া দিয়ে অস্থায়ীভাবে ঘর নির্মাণ করে।  ৩৫টি পরিবারের মধ্যে ২০টি আদিবাসী পরিবার ও বাকীগুলো মুসলিম পরিবার।  প্রায় দেড় মাস ধরে তারা ঘরগুলোতে বসবাস করতে থাকে।
 
গত রবিবার রাত ১টায় দিকে ২০ থেকে ২৫ জনের একটি মুখোশ পরিহিত দল ওই পুকুর পাড়ের ঘরগুলোতে হামলা চালায়।  দুর্বৃত্তদের হামলায় প্রায় ১৬টি ঘর ভাংচুর ও অগ্নি সংযোগ করা হয়।  এতে ঘরগুলো আগুনে পুড়ে যায়।  সন্ত্রাসীরা ধারালো হাসুয়া, কুড়াল, তীর ধনুক, লাঠি দিয়ে লোকজনকে কোপারে এবং পেট্রোলের ছিটিয়ে ঘরগুলোতে আগুন ধরিয়ে দেয়।  এতে ভূমিহীন শান্তি পাহানের হাত ভেঙ্গে যায় এবং তার ৫ বছরের ছেলে আকাশ মারাত্মক আহত হয়।  ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের ধান, চাউল, কাপড় চোপড়, হাঁস-মুরগী, ছাগল, নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন পুড়ে যায়।  

বর্তমানে ঘর হারানো মানুষগুলো পুকুরের পার্শে ওই এলাকার জহাঙ্গীর আলমের নির্মাণাধীন মুরগী সেড়ে আশ্রয় নিয়েছে।  ঘটনার সুষ্টু বিচারের দাবীতে গত সোমবার রাতে চৌঘাট খাসিপুর গ্রামের ক্ষতিগ্রস্ত মনা পাহানের স্ত্রী দুলালী পাহান বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।  মামলার প্রেক্ষিতে ওই রাতে অভিযান চালিয়ে পুলিশ মামলার প্রধান আসামী বস্তাবর গ্রামের আকতার হোসেনের ছেলে মোশারফ হোসেন মিস্টার এবং চককালু গ্রামের মোতারফ হোসেনের ছেলে মহব্বত হোসেনকে আটক করে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে নওগাঁ জেলা প্রশাসক মো.মিজানুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এছাড়া গত সোমবার রাতে নওগাঁর পুলিশ সুপার মো.ইকবাল হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এদিকে ধামইরহাট উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৩৫ পরিবারের মাঝে ৫হাজার টাকা এবং প্রত্যেক পরিবারের মাঝে ২০কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়।

এ ব্যাপারে ধামইরহাট থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুব আলম বলেন, ১২জনকে এজাহার নামীয় এবং ৩০ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে দুলালী পাহান বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।  মামলার প্রেক্ষিতে ধামইরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মো.জাকিরুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল রাতে অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে মুল আসামীসহ ২জনকে আটক করে।

এবিএন/আব্দুল্লাহ হেল বাকী/জসিম/রাজ্জাক 

এই বিভাগের আরো সংবাদ