সিরাজগঞ্জে ৫২ বছর ধরে গুটি রোগে ভুগছেন জলিল

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৫ মার্চ ২০১৯, ২০:০৩

অসহ্য কষ্টের পরেও এই দুনিয়াতে বাঁচতে চাই। আল্লাহ ছাড়া আমার কোন উপায় নাই। মুখমন্ডলসহ সমস্ত শরীরে আলুর মত গুটি রোগে আক্রান্ত সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার মথুরাপুর গ্রামের আব্দুল জলিল সাংবাদিকদের কাছে এ আকুতি জানান। চলনবিল ঘেষা ওই গ্রামের মৃত মকরমের ছেলে জলিল (৬৫) দীর্ঘ ৫২ বছর ধরে এই রোগে ভুগছেন।

তিনি কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, ১৩ বছর বয়সের পর থেকে শরীরের বিভিন্ন স্থানে ২/১ টি করে এ গুটি উঠতে শুরু করে। বর্তমানে এই গুটি সমস্ত শরীরে ছড়িয়ে পড়েছে। এ রোগ থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য অনেক ডাক্তার, কবিরাজ দেখানোর পরও কোন প্রতিকার না পাওয়ায় এখন চিকিৎসার আশা ছেড়ে দিয়েছি। গরীব বলে ভাল কোন হাসপাতাল থেকে উন্নত চিকিৎসা নিতে পারিনি। এমন সময়ে স্থানীয়রাও আমাকে সাহায্য সহযোগীতা করেনি। অবশ্য সে সময় উন্নত চিকিৎসা ব্যবস্থা সহজলভ্যও ছিলনা।

যেকারণে স্থানীয় কবিরাজের শরাণাপন্ন হই। এতে রোগ নিরাময় না হয়ে আরো বাড়তে থাকে। বর্তমানে সমাজের কোন সদয় বিত্তশালী ব্যক্তি যদি আমাকে সাহায্যের হাত বাড়িয়া দেন। অথবা দেশবরেণ্য চিকিৎসকেরা একটু আমার প্রতি সহানুভূতিশীল হন। তাহলে এই অসহ্য কষ্টের রোগ থেকে মুক্তি পেতে পারি। গরমের সময় শরীরে কোন কাপড় রাখা যায় না। খালি গায়ে থাকতে হয় এবং শীতকালে হালকা কাপড় ব্যবহার করা গেলেও খালি রোদে থাকতে ভাল লাগে।

তিনি এ রোগ থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করছেন। এ ব্যাপারে তাড়াশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অফিসার ডা. ইয়াহিয়া কামাল জানান, এ রোগের নাম নিউরো ফাইবরো ম্যাটোসিস। এটি একটি জেনিটিক রোগ নামে পরিচিত। এমন রোগ চিকিৎসায় তেমন ভাল হয় না বলে ধারণা। তারপরেও প্রয়োজনীয় উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা নিলে এ রোগ থেকে মুক্তি পেতে পারেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।


এবিএন/এস.এম তফিজ উদ্দিন/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ