জঙ্গি ও মাদক নির্মুলে আলেম সমাজ বড় ভূমিকা পালন করতে পারে

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৬:৫০

ধর্মীয় অনুশাসন থেকে দুরে চলে যাওয়ার কারণেই সমাজে অনাচার বেড়ে যাচ্ছে। আমরা যদি ইসলামের সঠিক নিয়ম মেনে চলি তাহলে সমাজ হবে শান্তির, মানুষে মানুষে বিবেধ থাকবেনা।

আন্তর্জাতিক ক্বিরাত সম্মেলন সংস্থার আয়োজনে এবং সীতাকুন্ডের হযরত পন্থিশাহ (রঃ) কমপ্লেক্সের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় দ্বিতীয়বারের মতো দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক ক্বিরাত সম্মেলন এবং কুরআন প্রতিযোগিতায় প্রধান অথিতির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের সদস্য আ.ম.ম দিলসাদ।

গতকাল সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সীতাকুন্ড উপজেলার সোনাইছড়ি ইউনিয়নের ঘোড়ামরা ফকির হাটস্থ হযরত পন্থিশাহ (রঃ) জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে উক্ত ক্বিরাত সন্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

মোসলেহ উদ্দিন খালেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত ক্বিরাত সন্মেলনে বিভিন্ন দেশের কারীগণ উপস্থিত ছিলেন। এর আগে সকাল থেকে হুফফাজুল কুরআন ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে কুরআন প্রতিযোগিতায অনুষ্ঠিত হয়। এতে পাঁচটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে হাফেজগণ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন।

জেলা পরিষদ সদস্য দিলসাদ আরো বলেন, আমাদের দেশে এখন দু’টি বড় সমস্যা রয়েছে তা হচ্ছে জঙ্গীবাদ আর মাদক। জঙ্গীবাদ যেমন মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে তেমনী মাদকও সমাজের রন্ধে রন্ধে ঢুকে গেছে। এর থেকে পরিত্রানে আলেম সমাজ বড় ভূমিকা পালন করতে পারেন।

 নামাজের খুৎবা ও বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আলেমগণ জঙ্গীবাদ ও মাদকের কুফল বিষয়ে মানুষকে সচেতন করতে হবে।

একসময় দেখা যেতো ভোরবেলা ছোট ছোট শিশুরা দল বেঁধে মত্তবে যেত আরবী শিখতে এখন সেই দৃশ্য চোখে পড়েনা। ধর্মীয় রীতি থেকে দুরে সরে যাওয়ার কারণে হানাহানিসহ বিভিন্ন ফ্যাসাদ বাড়ছে। বর্তমান সরকার ধর্মীয় বিষয়ে খুব সিরিয়াস, প্রধানমন্ত্রী দেশের সকল মসজিদের ইমাম, মোয়াজ্জেমের মাসিক সরকারীভাবে বেতনের ব্যবস্থা করেছেন।


এবিএন/রাজীব সেন প্রিন্স/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ
well-food