একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প কর্মচারীদের বেতন বৈষম্য দূরীকরনের দাবী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৬:১৫

একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে কম্পিউটার অপারেটর-কাম হিসাব সহকারীদের বেতন ও পদোন্নতিতে  বৈষম দূরীকরনের দাবী জানিয়েছে কর্মচারীরা।

 ভুক্তভোগীরা বিষয়টি সুরাহা করার জন্য স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও ব্যাংকের এমডি বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছেন। তাদের দাবি বেতন ও পদোন্নতি বৈষম্যের কারণে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে মাঠপর্যায়ে অসন্তোষ তৈরি হচ্ছে।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, ২০১০ সালে সরকার একটি বাড়ি একটি খামার নামে প্রকল্প চালু করে। প্রকল্পের মেয়াদ শেষে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক করা হয়। প্রকল্প শুরুর সময় উপজেলা সমন্বয়কারী (গ্রেড-১১), কম্পিউটার অপারেটর কাম-হিসাব সহকারী (গ্রেড-১৩) এবং মাঠ সংগঠক (গ্রেড-১৪) পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।

 পরে সংশ্লিষ্ট পদ সমুহে জনবল নিয়োগ করা হয়। ২০১১ সালে উপজেলা সমন্বয়কারীদের  বেতন বাড়িয়ে ১০ম গ্রেডে এবং ২০১৩ সালে মাঠ সংগঠকদের বেতন বাড়িয়ে ১৪তম থেকে ১২তম গ্রেডে উন্নীত করাসহ মাঠ সংগঠকদের পদের নাম পরিবর্তন করে ফিল্ড সুপারভাইজার করা হয়। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে কম্পিউটার অপারেটর কাম-হিসাব সহকারী পদে কোনো পরিবর্তন করা হয়নি, বাড়ানো হয়নি বেতনভাতাও।

তাদের পাশ কাটিয়ে জুনিয়র ও নিচের  গ্রেডের কমকর্তাদের উপরের গ্রেডে উন্নীত করা হয়। এতে একদিকে যেমন বেতন  বৈষম্য আর অপরদিকে প্রশাসনিক কাজে বিব্রতকর পরিস্থিতি তৈরি হয়। একইসঙ্গে নিয়োগ পেয়ে বেতন বৈষম্য ও পদোন্নতি বঞ্চিত কম্পিউটার অপারেটর-কাম হিসাব সহকারীরা। অথচ তারা প্রকল্পটির মূল চালিকাশক্তি।

গত ৪ঠা আগস্ট পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের নিকট  বৈষম্যের শিকার ১৮৮ জন ভুক্তভোগী স্মারকলিপি প্রদান করলেও অদ্যাবধি কোনো কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি বলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ। কম্পিউটার অপারেটর ঝর্ণা আক্তার ও নাজমুন নাহার বলেন, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে কয়েক দফায় বিষয়টি অবগত করা হয়েছে। তারা মৌখিক আশ্বাস দিয়েছেন মাত্র। পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের অধীনস্থ হওয়ায় আমরা খুব আশাবাদী ছিলাম যে, বৈষম্য দূর হবে। কিন্তু সে আশা যেন গুড়েবালি।

 অপর কর্মচারী উমর ফারুক,নূর ইসলাম, বিপ্লব মন্ডল,পবিত্র কুমার বলেন, প্রকল্পে আমরা নগদ অর্থ ব্যবস্থাপনা, অনলাইন ব্যাংকিং পরিচালনা, হিসাব শাখার যাবতীয় কাজ সম্পাদন, প্রশাসনিক ও সাচিবিক সহযোগিতার পাশাপাশি পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের হিসাব সহকারীর অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করি। পাশাপাশি কম্পিউটার অপারেটরের যাবতীয় কাজও করতে হয়। কিন্তু বরাবরের মতো এখনো আমরা অবহেলিত।

কম্পিউটার অপারেটর-কাম হিসাব সহকারীরা জানায়, তাদের একই গ্রেডে এবং বেতনে রেখে উপজেলা সমন্বয়কারীকে অফিসার (সাধারণ) ও মাঠ সংগঠক/ফিল্ড সুপারভাইজারকে জুনিয়র অফিসার (মাঠ) করে ব্যাংকে স্থানান্তর করা হয়েছে। কম্পিউটার অপারেটর-কাম হিসাব সহকারীরা তাদের পদ পরিবর্তনসহ বেতন বৈষম্য দুরীকরনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ করছে।


এবিএন/গোলাম মাহবুব/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ